প্রচ্ছদ

কলিম উদ্দিন মিলনের জন্য নেতাকর্মীদের বিরল ভালবাসা (ভিডিওসহ)

০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৩:৩৯

329

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:  সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনের বিএনপি’র মনোনয়ন বঞ্চিত তিনবারের সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনের জন্য বিরল ভালবাসা দেখিয়েছেন ছাতক দোয়ারার বিএনপির নেতাকর্মীরা।      দলীয় মনোনয়ন না দিলেও তার বিক্ষুব্ধ কর্মীদের শান্তনা দিয়ে দেশ ও দলের বর্তমান পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে আবেগঘন বক্তৃতা দিয়ে সকলকে ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন  পৌর বিএনপির আহবায়ক সৈয়দ তিতুমিরের উপজেলা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি আব্দুর রহমান, দোয়ারা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সামছুল হক নমু, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আম্বিয়া মাজকুর পাভেল, দোয়ারা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আলতাফুর রহমান খসরু, হারুনুর রশীদ, ছাতক উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক নজরুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক হিফজুল বারী শিমুল, ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম জুয়েল, আলহাজ্ব আব্দুল বারি, পৌর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক সামছুর রহমান সামছু, আব্দুল আওয়াল, পৌর কাউন্সিলর জসিম উদ্দিন সুমেন, বিএনপি নেতা শাহ শফিকুল আলম মতি, লায়েক শাহ, সামছুর রহমান বাবুল, কাজী মাওলানা আব্দুস সামাদ, সাদিকুর রহমান, আলী আশরাফ তাহিদ, দিল হোসেন, নাজমুল হোসেন, ছাদিকুর রহমান, আজর আলী মেম্বার, আতাউর রহমান এমরান, মেহেদী হাসান সোনা মিয়া, আবুল হোসেন, খায়ের উদ্দিন, ফয়জুর রহমান, শফি উদ্দিন, কয়েস আহমদ, জেইউ আহার, মনির মেম্বার, সুলেমান মিয়া, জাহেদুল ইসলাম আহবাব, ফজল উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান কুতুব উদ্দিন, তাজুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি বাকি বিল্লাহ, জেলা যুবদলের সহসভাপতি সাজ্জাদ হোসেন, জেলা যুবদলের সহসাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মমিন, যুগ্ম সম্পাদক জহির উদ্দিন, ইকবাল হোসেন ঝুনু, যুবদল নেতা এমরান আহমদ, মাওলানা জিয়াউর রহমান, কয়ছর আহমদ, ফখরুল আলম, কুতুব উদ্দিন, নেয়ামত উল্লাহ, লিজন তালুকদার, উপজেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক ফয়জুল আহমদ পাভেল, সহসভাপতি আরিফ বিল্লাহ মকবুল হোসেন, জাহাঙ্গির আলম, এনাম আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক ইজাজুল হক রনি, পৌর ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মুনিম মামনুন, ছাত্রদল নেতা সাজু আহমদ, সৈয়দ মেহেদী, সুজন ইমদাদ কানন, ফয়ছল আহমদ, রেজাউল করিম রিপন, ইমন আহমদ, রায়হান আহমদ, আব্দুল্লাহ সনি, মুহিত আহমদ, রাহেল আহমদ, স্বাচ্ছা আবেদিনসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। স্বজন হারানোর ব্যাথয় ও একসাথে এত মানুষের কান্না ছাতকবাসী   ইতিপূর্বে দেখিনি।

মিলনকে দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ার প্রতিবাদে শনিবার বিকাল ৩ টায় ছাতক উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ের সম্মুখে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করেন মিলন সমর্থকরা। হাইকমান্ডের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা না হলে গণপদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত ছিল তাদের।

শেষ পর্যায়ে সমাবেশস্থলে এসে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে বক্তৃতা দিতে শুরু করেন মিলন। তার আবেগঘন বক্তৃতা শোনে কান্নায় ভেঙে পড়েন নেতাকর্মীরা। কর্মীদের কান্না দেখে কাঁদেন নিজেও।

তিনি তার অনুসারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আপনারা যুগ যুগ ধরে আমার সাথে নির্বাচন থেকে শুরু করে আন্দোলন সংগ্রামে সাহসের সাথে অংশগ্রহণ করেছেন। জনগনের দুয়ারে দুয়ারে গিয়েছেন। জেল খেটেছেন, গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মামলা হামলায় বিপর্যস্থ হয়েছেন। আপনাদের প্রত্যাশা ছিল নির্বাচনে আমাকে যাতে মনোনয়ন দেওয়া হয়। কিন্তু সেটা না হওয়ায় আপনারা আজ দুঃখ ভারাক্রান্ত। আমি সকলের কাছে করজোড়ে অনুরোধ করে বলছি, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে, তারেক রহমান নির্বাসনে। এই পরিস্থিতে প্রার্থী যাকেই করা হোক না কেন সারা বাংলাদেশেই খালেদা জিয়াকে ধানের শীষের প্রার্থী মনে করতে হবে। এই দুঃসময়ে দেশ ও দলকে বাঁচাতে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। নির্বাসন থেকে তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে হবে।’

এ সময় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে মিছিলের গতিরোধ করতে রাস্তায় বসে পড়েন মনোনয়নবঞ্চিত কলিম উদ্দিন মিলন।

সমাবেশে ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলা বিএনপি ও অংগ সংগঠের মিলন অনুসারী কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জ-৫ আসনে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ছাতক উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী দলীয় মনোনয়ন দিয়েছে বিএনপি। দলের পদপদবী ও মনোনয়ন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ছিল মিলন ও মিজানের মধ্যে।

 

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  • 2.2K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2.2K
    Shares

সর্বাধিক ক্লিক