প্রচ্ছদ

চরম এক মিরাক্কেল এ সেহরির সময়সুর্চি…

২৫ মে ২০১৯, ১৩:৫৫

sylnewsbd.com

মুহিবুর রহমান বক্স আবু :: হুজুর ডাকলেন- সম্মানিত রোজাদার আর মাত্র ৮ মিনিট সময় বাকি আছে সেহেরির খাওয়া দাওয়া শেষ করুন, এর ঠিক এক মিনিট পর আরেক মসজিদ এর ডাক সম্মানিত এলাকাবাসী আর মাত্র ১০ মিনিট সময় বাকি আছে, ২ থেকে ৩ মিনিট পর আরেকটি মসজিদ থেকে কানে আসতে লাগলো ৬ মিনিট সময় আছে, মজার বিষয় হলো ঠিক দুই মিনিট পর আবারো মাইক বাজতে লাগলো, সম্মানিত রোজাদার বা সম্মানিত এলাকাবাসী সেহেরির সময় শেষ হয়ে গেছে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করুন।

প্রতিটি পাড়া মহল্লায় পাশাপাশি অনেক মসজিদ থাকায় এবং ভোর হওয়ায় অনেক দূর থেকেও আমাদের কানে আওয়াজ আসে, সময়সুর্চি মিল-অমিল এর মারপেঁচে ঘটে বিপ্ততি,
শুরু হয় বিভ্রান্তি, কার সময় বলা সঠিক…

আরেকটি সত্য ঘটনা বলে শেষ করছি, সেদিন দেখলাম হুজুর বলে আসলেন মাইকে আমি মসজিদে দাড়ানো, সময় শেষ খাওয়া দাওয়া বন্ধ করুন, আমার সামনের দিয়ে যাচ্ছেন আমি লক্ষ্য করলাম, উনার মুখে পান খেয়ে খেয়ে যাচ্ছেন, আমি জিজ্ঞেস করলাম এই মাত্র বললেন সময় শেষ, আর আপনি এখনো পান খাচ্ছেন, দাত ব্রাশ করবেন কখন- আর পানি ই বা খাবেন কখন,
যেটা জানতে পারলাম শেষ বলার পর ও নাকি হুজুর”দের কাছে ১, দুই মিনিট থাকে, উনাকে জিজ্ঞেস করতেই- পিছন থেকে আরেকজন আংকেল বললেন ঠিক,

তার ঠিক একদিন পর আমি নিজে ও পড়ে গেলাম মিরাক্কেলে, হা হা হা

দাত ব্রাশ করে এসেই শুনলাম সময় শেষ,
পানি খাওয়া হয়নি আমার,
তখনি মনে হলো -হুজুর আর আংকেল এর কথা, সময় যখন থাকেই হাতে এক দুই মিনিট, খেয়ে নিলাম পানি…

সর্বশেষে বলবো প্রতিটি ওয়ার্ডে জন প্রতিনিধি থাকেন,
যদি আপনারা আপনাদের ওয়ার্ডে যে কয়টা মসজিদ থাকে সব কয়টা কে এক সময় সুর্চি’র মধ্যে নিয়ে আসতেন, মানুষ উপক্ষিত হতো, আর আপনারা আমাদের দোয়ায় আর ভালোবাসায় সিক্ত হতেন…

বিঃদ্রঃ – আমার লিখায় ভুল হলে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি, আমি কাউকে ছোট বা আঘাত করতে চাই নি,
মিরাক্কেল এর একটা উপায় চেয়েছি,
ধন্যবাদ …………।

সর্বাধিক ক্লিক