প্রচ্ছদ

মরার উপর খাড়ার ঘা-বারমিংহামে যানবাহন ব্যবহারে অতিরিক্ত ব্যয় বাড়ছে

০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৪৯

329

চৌধুরী হাফিজ আহমদ,বারমিংহাম থেকে :: বারমিংহামের শহর এলাকায় গাড়ি চালাতে জন প্রতি লাগবে ৮ পাউন্ড থেকে ১০ পাউন্ড। ট্যাক্সি ও ভাড়া চালিত যানের লাগবে ১২ থেকে ১৯ এবং বাসের লাগবে ৫০ পাউণ্ড। এই নিয়ম কার্যকর হতে যাচ্ছে খুব শিগগীর। অনেক দিন থেকে এই পরিকল্পনা বা প্ল্যান নিয়ে আলাপ আলোচনা চলছিল। সরকার থেকে ও প্রচুর চাপ দেয়া হয়েছে। অনেক আলোচনা সমালোচনার পরেই নাকি এই চার্জ লাগাতে বাধ্য হচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন। এই এলাকায় এর নাম দেয়া হয়েন- ক্লিন এয়ার জোন। যা লন্ডনের মতই কনজাসচন চার্জ । খবরে জানা যায়

বারমিংহাম কাউন্সিল কয়েক্তি মামলায় হেরে যায় এবং ক্ষতি পুরণ দিতে দায়ভার উপরে বর্তায় এর পরেই তাহাদের ঠনক নড়ে। তাই সেই দায়ের চাপ এখন জনগনের ঘাড়ে চাপিয়ে দিতে যাচ্ছে স্থানীয় সরকার। জনগনের এমনি ত্রা হি ত্রা হি অবস্থা নানা সংকটে জনগন জর্জরিত। এর উপরে এই চার্জ মরার উপর খাড়ার ঘা বলেই মনে করছেন। ব্যবসায়ী হাবিবুর রাহমান বলেন – এই চার্জ লাগানো হবে আমাদের এই এলাকাকে আরও সমস্যায় ফেলা। ব্যবসায়ী জনাব আব্দি আব্দুর রাহমান বলেন – এই চার্জের ফলে আমাদের ব্যবসায় মন্দা অবস্থার সৃষ্টি হবে। সামাজের গন্য মান্য নাগরিক জনাব সফিকুল ইসলাম আহবাব কাবেরি সাহেব, সৈয়দ লুতফুর রাহমান, জনাব মুজিবুর রাহমান বলেন এতে সুবিদার বদলে মানুষের দুর্ভোগ ই বাড়বে। এখনকার মতো খোলা মেলা ও সহজে চলাফেরা করবেনা জনগণ। চিন্তা করবে এবং হিসাব করে চলবে। সব কিছুর মূল্য বাড়বে। এতে করে সরকারের ও অনেক ক্ষতি হবে। এলাকার কাউন্সিলর জনাব সাদেক ও জিয়াউল ইসলাম সাহেবের সাথে আলাপে জানা গেল এই চার্জ এর ব্যাপারটি একদম চূড়ান্ত পর্যায়ে । অন্য দিকে এই খবরে সমাজে ছড়িয়ে পরছে ক্ষোভ – প্রতিবাদে সোচ্চার হচ্ছেন সবাই। যে কোন উপায়ে তা প্রতিহত করতে করা হচ্ছে প্রতীবাদ। এই সংখ্যা দিনে দিনে বেড়ে যাচ্ছে এর সাথে যোগ দিচ্ছে কমিউনিটি সংঘটন। শুক্র বারে জুম’আর সালাত পরে – সেন্ট্রাল মাসজিদের বাহিরে আগত মুসল্লীরা সবাই ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং স্থানীয় প্রশাসন কে ভিন্ন উপায় খুজতে পরামর্শ দেন ।

সর্বাধিক ক্লিক