প্রচ্ছদ

যুবকরাই যুবলীগের নেতৃত্ব দিবে : এম রায়হান চৌধুরী (ভিডিও)

১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০২

sylnewsbd.com

আল-মুক্তাকিম কবীর সোহান :: যুবকরাই যুবলীগের নেতৃত্ব দিবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধ শেখ মুজিবুর রহমান দেশ স্বাধীন করিছিলেন আর বর্তমান সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত কাজ বাস্তবায়ন করতে দিন রাত কাজ করছেন। দেশ আজ উন্নয়নের পথে হাটছে । সিলেটের সংসদ সদস্য ড.একে আব্দুল মোমেন সিলেটে উন্নয়নের মহা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন এই সব কাজ এগিযে নিতে দক্ষ মুজিব সেনা দরকার এই জন্য আমার একটি ই কথা যুবকরাই যুবলীগের নেতৃত্ব দিবে।

সিলেটের জনপ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতা আওয়ামী পরিবারে বেড়ে উঠা কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদের হাত ধরে আমি মুজিব আদর্শের কর্মী হিসেবে ছাত্রলীগ দিয়ে রাজনীতির রাজপথে এসেছি । এই সব অনেক কথা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক যুবলীগ নেতা এম রায়হান চৌধুরী সিলনিউজ বিডি ডট কমকে বলেন।।

২০১৪ সালে আলম খান মুক্তিকে আহ্বায়ক করে গঠন করা হয়েছিলো মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি। কথা ছিল ৩ মাসের মধ্যে ওয়ার্ড কমিটিগুলো গঠন করে সম্মেলনের মাধম্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হবে। কিন্তু দীর্ঘ ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও সম্মেলনের আয়োজন করতে পারেনি আহ্বায়ক কমিটি।

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ২৭ জুলাই সিলেট মহানগর যুবলীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে চাঙ্গা হয়ে উঠেছেন মহানগর যুবলীগের পদ প্রত্যাশীরা। দলীয় কর্মীদের সাথে গণসংযোগের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় পর্যায়ে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে উজ্জীবিত কর্মীরাও।

সম্মেলনকে তারিখ ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মত গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যাও বাড়ছে।

সভাপতি পদে বর্তমান আহবায়ক আলম খান মুক্তির প্রার্থী হচ্ছেন তা নিশ্চিত। তার পাশাপাশি সভাপতি পদে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন যুবলীগ নেতা শান্ত দেব ও যুবলীগের আগের কমিটির সদস্য শ্যামল সিংহ।

সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন- বর্তমান আহবায়ক কমিটির ১ম যুগ্ম আহবায়ক মুশফিক জায়গিরদার, ২য় যুগ্ম আহবায়ক সেলিম আহমেদ সেলিম। পাশাপাশি সাবেক ছাত্রলীগ, সুবেদুর রহমান মুন্না, আব্দুল লতিফ রিপন, জাকিরুল আলম জাকির ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নেতা এম রায়হান চৌধুরী ।

সভাপতি প্রার্থী শান্ত দেব বলেন, এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে অনেক দ্বিধাবিভক্তি আছে। দীর্ঘদিন ধরে ত্যাগী নেতাদের যেভাবে বঞ্চিত করা হয়েছে এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আবারো যেন তাদের ভোটের অধিকার বঞ্চিত করা না হয়। কারণ যে ভাবে কাউকে না জানিয়ে ওর্য়াড কমিটি ও ভোটার তালিকা করা হয়েছে তাতে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা আছে। দলের একটি বড় অংশকে বাদ দিয়ে ৩ মাসের কমিটি নিয়ে ৫ বছর কাটিয়ে দিয়েছে কয়েকজন। এখন পরিবর্তন দরকার। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচন হলে অবশ্যই নেতৃত্বে পরিবর্তন আসবে। তাই কেন্দ্রের প্রতি বিশ্বাস রেখে আমি প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছি।

আরেক সভাপতি প্রার্থী শ্যামল সিংহ বলেন, এই নির্বাচন একটা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে হচ্ছে। কারণ সিলেট যুবলীগ এককেন্দ্রিক হয়ে গেছে। ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে ওয়ার্ড কমিটিতে হাইব্রিডদের পদ দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সুদৃষ্টি না থাকলে এটা একটা আইওয়াশ নির্বাচন হবে। তারপরও সকল ভোটারদের সাথে যোগাযোগ রাখছি। প্রচার চালাচ্ছি সুষ্ঠু ,নির্বাচনের আশায়।

সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী এম রায়হান চৌধুরী বলেন, ৩ মাসের কথা বলে ৫ বছর চালানো হলো মহানগর যুবলীগ। এখন সময় এসেছে পরিবর্তনের। আমরা যারা ছাত্রলীগ করে যুবলীগ করতে এসেছি আমরা চাই যুবরাই যুবলীগের নেতৃত্ব দিবে। দীর্ঘদিন যাবত সিলেটের যুবলীগ নিষ্ক্রিয় অবস্থায় রয়েছে। ঝিমিয়ে পড়া সেই যুবলীগকে জাগিয়ে তোলার জন্য প্রার্থী হয়েছি। সুষ্ঠু ভাবে নির্বাচন হলে কর্মীরা যোগ্য নেতাকেই নির্বাচন করবে।

সিলেট জেলা যুবলীগের বর্তমান কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও মহানগর আওয়ামীলীগের নেতা আজাদুর রহমান আজাদ।বলেন, ত্যাগী ,সৎ নিবেদিত প্রাণ নেতৃত্ব নতুন কমিটিতে আসলে দল গতিশীল হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ৭ জুলাই সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। আলম খান মুক্তিকে আহবায়ক করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটিতে যুগ্ম আহবায়ক ছিলেন- মুশফিক জায়গিরদার, সেলিম আহমেদ সেলিম, আসাদুজ্জামান আসাদ ও সাইফুর রহমান খোকন।

সর্বাধিক ক্লিক