প্রচ্ছদ

শ্রীমঙ্গলে শ্মশানঘাটে পাঁচ শতাধিক মরা মুরগি

২২ মে ২০১৯, ২৩:৫৪

sylnewsbd.com

নিজস্ব প্রতিবেদক :: প্রায় পাঁচ শতাধিক মরা মুরগি ফেলে রাখা হয়েছে শ্মশানঘাটে। মুরগিগুলো পচে গিয়ে ছড়াচ্ছিলো দুর্গন্ধ। ঘটনাটি ঘটেছে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে কালীঘাট চা বাগানের শ্মশানঘাট এলাকায়। বুধবার সকালে এই এ দৃশ্যটি দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে রাতের আঁধারে পার্শ্ববর্তী কোন পোল্ট্রি ফার্ম থেকে মরা মুরগিগুলো শ্মশানঘাটে এনে ফেলে রাখা হয়েছিলো। পরে জন দুর্ভোগের কারণে ফিনলে কালীঘাট চা বাগান কর্তৃপক্ষ মুরগিগুলো এক করে মাটির নিচে পুতে রাখেন।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মৃতসৎকারের জায়গায় পচা মুরগিগুলো ফেলে রাখায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। শ্রীমঙ্গল কালীঘাট চা বাগানের পলাশ কান্তি দে বলেন, সকাল বেলা এই জায়গার সামনে দিয়ে চলাচল করা মানুষগুলো মানুষ দুর্গন্ধের কারণে দুর্ভোগের পড়েন। কে বা কারা শত শত মরা পোলট্রি মুরগী এখানে ফেলে গেছে। শ্মশানঘাটের সামনে দিয়ে বয়ে চলা রাস্তা দিয়ে লোকজন নাকে হাত দিয়ে যাতায়াত করছেন। পরে বাগান কর্তৃপক্ষ লোক লাগিয়ে মুরগিগুলো মাটির নিচে পুতে রাখেন।

সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. হরিপদ রায় বলেন, মরা মুরগি এভাবে খোলা জায়গায় ফেলার কারণে এর জীবাণুগুলো বাতাসে ছড়িয়ে পড়ায় বিভিন্ন রোগ ব্যাধি ছড়ানোর সম্ভাবনা দেখা দেয়। এর কারণে শ্বাসজনিত রোগের সৃষ্টি হতে পারে। তাছাড়া বৃষ্টির পানিতে এই মরা মুরগীর জীবাণুরা ছড়া বা নদীর পানিতে গিয়ে মিশবে। পানি ব্যবহার কারিরা ডায়রিয়া, আমাশয়সহ বিভিন্ন পানিবাহিত রোগের কবলে পড়বে। এ ধরণের একটি কাজ যেমন নিন্দনীয় তেমনি মানব স্বাস্থ্যের জন্য খতিকর।

এদিকে ফিনলে টি কালীঘাট চা বাগানের ডিজিএম সৈয়দ সালাউদ্দিন বলেন, কালীঘাট চা বাগানের আউট সাইডে কে বা কারা রাতের অন্ধকারে মরা মুরগিগুলো ফেলে চলে গেছে। আমরা বিষয়টি জানার সাথে সাথে কোম্পানির লোক লাগিয়ে সব মরা মুরগি বড় গর্ত করে পুতে দিয়েছি।

সর্বাধিক ক্লিক