প্রচ্ছদ

সুনামগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলায় সাংবাদিক আহত, মামলা

১১ মে ২০১৯, ২১:৩২

sylnewsbd.com

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সাংবাদিক ও হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত সেনের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় মূল দুই আসামি গোপাল রায় ও রিংকু রায়সহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার (১০ মে) আহত সাংবাদিক জয়ন্ত সেন শাল্লা থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য মামলার প্রধান আসামি গোপাল রায়কে ঘটনার দিন রাতেই গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সে বর্তমানে জেলহাজতে আছে।

মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে গোপাল রায়কে। অন্য আসামিরা হলো আনন্দপুর গ্রামের মৃত রবীন্দ্র রায়ের ছেলে রিংকু রায়, মৃত প্রাণকৃষ্ণ রায়ের ছেলে ইন্দ্রজিত রায়, রবীন্দ্র রায়ের ছেলে মিহির রায় ও রানা রায় এবং একই গ্রামের বাবলু রায়সহ অজ্ঞাতনামা আরো ২-৩জন।

গত ৫ মে সন্ধ্যায় নিয়ামতপুর-জয়পুর নামক মধ্যবর্তী স্থানে ধর্ষণ চেষ্টার সংবাদ প্রকাশের জেরে গোপাল রায় ও রিংকু রায়ের নেতৃত্বে সাংবাদিক জয়ন্ত সেনের উপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়। তাকে দেশিয় অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে বেদম মারপিট করে মৃত ভেবে রাস্তায় ফেলে যায় গোপাল ও রিংকু গংরা। তার ডান পা, মাথা, পিঠ, গলাসহ শরিরের বিভিন্ন অঙ্গে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আশঙ্কাজনকভাবে সাংবাদিক জয়ন্ত সেনকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী উন্নত চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে প্রেরণ করার কথা বললেও স্থানীয় সাংবাদিকদের অনুরোধে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। এখনো তিনি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এদিকে সাংবাদিক জয়ন্ত সেনের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে পরদিন সুনামগঞ্জে কর্তব্যরত সাংবাদিকরা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। পরদিন শাল্লা ও বিশ্বম্ভরপুরেও মানববন্ধন করেন সাংবাদিক জনতা। গত শুক্রবার সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ বরকতুল্লাহ খানও শাল্লা থানার ওসি মো. আশারাফুল ইসলামকে আসামিদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন।

শাল্লা থানার ওসি মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, সাংবাদিক জয়ন্ত সেনের উপর হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আমরা সকল আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি। আমাদের উর্ধতন কর্তৃপক্ষও আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য নির্দেশন দিয়েছেন।

এদিকে মামলার ঘটনায় যাদের সাক্ষী করা হয়েছে তাদের অনেককেই হুমকি ধমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মামলায় সাক্ষী হওয়ায় আসামি রিংকু রায়ের নেতৃত্বে তারা আসামিদের হুমকি দিচ্ছে। পাশাপাশি অসহায় সাংবাদিক জয়ন্তকে আইনী বিচার পেতে সহযোগিতা করায় ইউপি সদস্য সুব্রত সরকারের ফেইসবুক আইডি হ্যাক করেও এ বিষয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করা হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।
ইউপি সদস্য সুব্রত সরকার বলেন, আসামিরা সাক্ষীদেরও হুমকি দিচ্ছে। পাশাপাশি আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক করেও এ বিষয়ে মিথ্যা ও বিব্রতকর প্রচারণা চালাচ্ছে।

সর্বাধিক ক্লিক