প্রচ্ছদ

সৌম্য–লিটন–ইমরুল—তামিমের সঙ্গী কে?

০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০৭

329

খেলা ডেস্ক :: তামিম ‘অটোমেটিক চয়েস’। ওয়ানডেতে ওপেনিং জুটিতে তাঁর সঙ্গী হবেন কে? ইমরুল, সৌম্য না কি লিটন? বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল বলছেন, এখনো সিদ্ধান্ত নেয়নি টিম ম্যানেজমেন্ট।

বিকেএসপিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছেন তামিম ইকবাল। সেঞ্চুরি করেছেন সৌম্য সরকারও। দুজনই সেঞ্চুরি করেছেন ক্যারিবীয় বোলারদের পিটিয়ে। এই ম্যাচে ইমরুল কায়েস ২৭ করলেও সবশেষ ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান কিন্তু তিনিই। এশিয়া কাপের সেঞ্চুরির পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৮৩ রান করা লিটনকে উপেক্ষা করতেও ভাবতে হবে টিম ম্যানেজমেন্টকে।

টেস্ট অভিষেকে রাঙানো সাদমান ইসলামকে না হয় ওয়ানডে সিরিজে বাইরে রাখা যাচ্ছে। কিন্তু শুরুতেই যে চার ওপেনারের কথা বলা হলো তাঁদের তিনজনকে তো নিতেই হবে টপ অর্ডার সাজাতে। তামিম ‘অটোমেটিক চয়েস’। কিন্তু তাঁর সঙ্গী হবেন কেন? ইমরুল, সৌম্য না কি লিটন? আপাতত কঠিন এক ধাঁধা। টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য মধুর সমস্যাই বটে। বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন এখনো বলতে পারছেন না, তামিমের সঙ্গী কে হবেন, ‘এই বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। এখনো ঠিক করা হয়নি তামিমের সঙ্গে কে ওপেন করবে। এটা আগামীকাল ঠিক করা হবে।’ অবশ্য এ মধুর সমস্যাকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন তিনি, ‘এটি দলের জন্য অনেক ভালো একটি লক্ষণ। বিকল্প ক্রিকেটাররা যথেষ্ট ভালো অবস্থানে আছে। আর একটি প্রতিযোগিতার মধ্যে থাকলে দল সব সময় ভালো অবস্থানে থাকে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকা ভালো। যখন যাকে দরকার হবে তখন তাকে খেলানো হবে।’

বিকেএসপিতে যখন তামিমের সঙ্গে সৌম্য সমানে চালিয়ে যাচ্ছেন, মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তখন অনুশীলন করছেন লিটন। টপ অর্ডারে এই তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা কীভাবে নিচ্ছেন তিনি? লিটন সংবাদমাধ্যমকে বললেন, ‘আমাদের জন্য অবশ্যই ভালো। চ্যালেঞ্জিংও বলতে পারেন। দলে এখন তিন-চারজন ওপেনার, তারা নিয়মিত ভালো খেলছে। দেখতেও ভালো লাগে। নিজের ভেতর চ্যালেঞ্জ থাকে যে ভালো করতে হবে। আর আমি খেলব নাকি খেলব না, এটি পুরোপুরি টিম ম্যানেজমেন্টের ব্যাপার। আমার কাজ শতভাগ দেওয়ার, সেই চেষ্টা করব।’

কিন্তু কাজটা সহজ হবে না। মিনহাজুলই বললেন, টিম ম্যানেজমেন্টের হাতে অনেক বিকল্প। খারাপ করলে লিটনকে দলে রাখার মতো বিলাসিতা নিশ্চয়ই করবে না। তবে এটিকে চাপ ভাবছেন না লিটন, ‘তেমন কোনো চাপ নেই। ক্রিকেট খেলি যখন ভালো করতেই। যে কোনো পরিস্থিতি ভালো করার চেষ্টা করব।’

গত এক মাসে লিটন যে তিনটা টেস্ট খেললেন, খুব একটা আলো ছড়াতে পারেননি। মিরপুর টেস্টে খেলার কথাই ছিল না। আকস্মিকভাবে দলে সুযোগ পেয়ে করেছেন ৫৪, আপাতত এটিই তাঁর আত্মবিশ্বাসের জ্বালানি। লিটন অবশ্য মনে করেন টেস্টে একটু খারাপ সময় গেলেও ওয়ানডেতে সেটির প্রভাব পড়বে না, ‘টেস্ট আর ওয়ানডে পুরোপুরি আলাদা। ওয়ানডেতে মিশ্রণ থাকে, টানা পেস বোলিং খেলতে পারবেন না, আবার স্পিনও টানা খেলতে পারবেন না। নিজেকে সেভাবেই প্রস্তুত করছি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে লিটন খেলেছেন আটে। তবে তাঁর সব সময়ই পছন্দের পজিশন ওপেনিং, ‘এটা টিম ম্যানেজমেন্টের ব্যাপার। নিজের পছন্দ বললে, আমি যেহেতু সব সময় ওপেন করি ও সেখানে ভালো করছি, সেখানে খেলতেই বেশি স্বচ্ছন্দবোধ করি।’

সর্বাধিক ক্লিক