অতিরিক্ত টোল ও চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদে তাহিরপুরে অনির্দিষ্টকালের নৌপরিবহন ধর্মঘট

প্রকাশিত: ৭:১১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২০

অতিরিক্ত টোল ও চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদে তাহিরপুরে অনির্দিষ্টকালের নৌপরিবহন ধর্মঘট

তাহিরপুর প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সীমান্ত নদী যাদুকাটায় অতিরিক্ত টোল ও চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের জন্য নৌপরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছেন নৌমালিক, শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা।

যাদুকাটা নদীর নৌকা মালিক, শ্রমিক, সর্দার ও হাজী নোয়াজ আলী ট্রাস্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে টোল আদায়ের নামে অতিরিক্ত চাঁদা আদায় বন্ধ করার দাবিতে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) সকালে তাহিরপুর উপজেলার সোহালা নতুন বাজার এলাকার যাদুকাটা নদীর পাড়ে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন শেষে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দেন তারা।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, যাদুকাটা নদীর নৌকা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ছিদ্দিক মিয়া, উপদেষ্টা বাছির মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা আদুস ছাত্তার, জোবায়ের এন্টারপ্রাইজ নৌকার চালক জসিম উদ্দিন, মাঝি নাছির মিয়া, নৌমালিক সোহালা গ্রামের শহিদ মিয়া, নৌশ্রমিক আব্দুল আলী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, টোল আদায়ের জন্য সরকারের নির্ধারিত তালিকা থাকা সত্ত্বেও ইজারাদারদের পালিত সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা চাঁদাবাজ চক্র দীর্ঘদিন যাবৎ জোরর্পূবক অতিরিক্ত চাদাঁ আদায় করে আসছে। এমনকি সরকারের তালিকা অনুযায়ী যেখানে একটি নৌকা থেকে ৫শ টাকা আদায়ের কথা, সেখানে তাদের ২ থেকে ৩ হাজার টাকা করে দিতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়,তাদের চাহিদামতো টাকা না দিলে ওই চাদাঁবাজ চক্রটি নৌকার মাঝিসহ নৌকায় থাকা লোকদের মারধর করে ও নৌকার মালামাল নিয়ে যায়। এ বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বার বার জানানোর পরও এর কোনো সুরাহা হচ্ছে না। তাই তারা বাধ্য হয়ে এখন অনির্দিষ্টকালের জন্য সবাইকে নিয়ে নৌপরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছেন। যতক্ষণ পর্যন্ত টোল আদায়ের নামে অতিরিক্ত চাদাঁ আদায় ও নৌকার লোকদের শারীরিক নির্যাতন বন্ধ না হবে, ততদিন পর্যন্ত এ নৌধর্মঘট অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, এর আগে গতমাসের ১২ তারিখে যাদুকাটা নদী ও রক্তি নদীতে অতিরিক্ত টোল আদায়কারী ঘাট ইজারাদার ও চাঁদাবাজ চক্রের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নিবার্হী অফিসার বরাবর যাদুকাটা নদীর নৌকা মালিক সমিতির পক্ষ থেকে একটি লিখিতআবেদন দেয়া হয়েছিল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ খবর

আমাদের ফেইসবুক পেইজ