অনলাইনে ভুয়া রিভিউ রুখতে নির্দেশিকার প্রস্তাব ভারতের

প্রকাশিত: ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২২

অনলাইনে ভুয়া রিভিউ রুখতে নির্দেশিকার প্রস্তাব ভারতের

অনলাইনে ভুয়া রিভিউ রুখতে নির্দেশিকার প্রস্তাব ভারতের
অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন দুনিয়া এবং ই-কমার্সকে আরো বিশ্বস্ত করে তুলতে চাইছে ভারত। গ্রাহক এবং ব্যবহারকারীরেদর বিভ্রান্তি কমাতে ভুয়া রিভিউ এবং রেটিংয়ের বিরুদ্ধে গত সোমবার একটি অভিযান শুরু করা হয়েছে।

অ্যালফাবেট আইএনসির গুগল, মেটা প্ল্যাটফর্মের ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এবং আমাজন ডট কম সহ ভ্রমণ সংক্রান্ত একাধিক সাইট এবং ফুড ডেলিভারি অ্যাপের কোম্পানিগুলোর জন্য সরকার একটি নির্দেশিকা তৈরি করেছে।
এই অ্যাপগুলির অনেক কিছু রিভিউ এবং রেটিংয়ের উপর নির্ভর করে। পণ্য বা অ্যাপটি ব্যবহার সংক্রান্ত ইতিবাচক রিভিউ সম্ভাব্য ক্রেতাদের আগ্রহ তৈরিতে সহায়তা করে। পণ্য বিক্রিতে জরুরি ভূমিকা রয়েছে এই রিভিউর।

কিছু কোম্পানি উপভোক্তা বা গ্রাহকদের এবং শিল্প বিশেষজ্ঞদের দেয়া নেতিবাচক রিভিউ চেপে দেয়ার জন্য, ভুয়া রেটিং নেয়ার জন্য সমালোচিত হয়েছে। ক্রেতাদের যাচাই করার প্রক্রিয়াটিকে জটিল করে তুলেছে এই সব ভুয়া রিভিউ এবং রেটিং। মেইলের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে চাওয়া হলেও সংস্থাগুলি যদিও তাৎক্ষণিকভাবে বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

ভারতের অন্যতম ফুড ডেলিভারি অ্যাপ জোমাটোর একজন মুখপাত্র বলেন, “ফিডব্যাক মেকানিজম রিভিউ গ্রাহক বা ভোক্তার স্বার্থের জন্য অপরিহার্য। আমরা সরকারের গৃহীত পদক্ষেপকে স্বাগত জানাই। আমরাও নিয়ম মানতে বাধ্য।”

ভোক্তা বিষয়ক অধিদপ্তরের কমিটি গঠন

ভারতের ক্রেতা সুরক্ষা, খাদ্য এবং সরবরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয় জুন মাসে এই নিয়ে একটি কমিটি গঠন করে। ই-কমার্স সাইটে প্রতারণামূলক এবং ভুয়া রিভিউ খতিয়ে দেখতে একটি কাঠামো তৈরি করা হয়েছে।

নির্দেশমূলক খসড়া তৈরি করা কমিটির অংশ হলো লোকালসার্কেল নামে একটি কমিউনিটি প্ল্যাটফর্ম। প্রাথমিকভাবে তারা প্রস্তাবটি মন্ত্রণালয়ে জমা দেয়। প্ল্যাটফর্মের প্রতিষ্ঠাতা শচীন তাপোরিয়া বলেন, ”অনলাইন রিভিউর জন্য নতুন নির্দেশিকাগুলি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যাতে স্বচ্ছতা বজায় থাকে এবং তথ্যও নির্ভুল হয়।”

তাপারিয়া বলেন, ”নতুন নিয়মবলীতে নির্দিষ্ট ছয় থেকে আটটি পদ্ধতির মাধ্যমে গুগল এবং ফেসবুকের মতো প্ল্যাটফর্মগুলো রিভিউর পিছনে থাকা আসল ব্যক্তিকে যাচাই করতে পারবে। শুধু রিভিউ দেয়ার জন্য তৈরি করা ভুয়া অ্যাকাউন্ট সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মুছে যাবে বা সক্রিয় থাকবে না।

যদিও প্রস্তাবনার সম্পূর্ণ বিবরণ এখনও প্রকাশ করা হয়নি।

নয়াদিল্লিতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন ক্রেতাসুরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব রোহিতকুমার সিং। তিনি বলেন, ”আমরা প্রথমে এই নির্দেশিকাগুলি ‘ভলান্টারি কমপ্লায়েন্স’ দেখবো। যদি দেখি বিপদ বাড়ছে, তবে আমরা এটি বাধ্যতামূলক করতে পারি।”

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ড এই বিষয়টির মূল্যায়ন করবে।

অনলাইন কোম্পানিগুলি বলেছে, ভুয়া রিভিউ রুখতে অভ্যন্তরীণ পর্যায়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখে তারা। কিন্তু এখন এটি ব্যর্থ হওয়া তো নির্দেশ লঙ্ঘন করা নয়।

তাপারিয়া জানান, নির্দেশিকা বাধ্যতামূলক হলে নেতিবাচক রিভিউ গোপন করা কিংবা জাল ইতিবাচক রিভিউর মাধ্যমে ব্যবসায় অনায্য পন্থা নিলে কোম্পানিগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হতে পারে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে ও রয়টার্স।

বিডি-প্রতিদিন

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031 
       
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ