অবঃ পুলিশ কর্মকর্তা স্হিতধী বড়ুয়া আর নেই। পুলিশের পক্ষ থেকে শেষ শ্রদ্ধা

প্রকাশিত: ২:৫৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১

অবঃ পুলিশ কর্মকর্তা স্হিতধী বড়ুয়া আর নেই। পুলিশের পক্ষ থেকে শেষ শ্রদ্ধা

অবঃ পুলিশ কর্মকর্তা, সমাজ সেবক স্থিতধী বড়ুয়া থাইরয়েড ক্যান্সারে গুরুতর আক্রান্ত হয়ে গত কয়েকদিন যাবৎ ঢাকার ইউনাইটেড হসপিটালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গতকাল শুক্রবার ভোর পাঁচটায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।মৃত্যু কালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২ বৎসর। নিজ গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানার পাইত্তালিপুলে আজ বিকাল ছ’টায় তাঁর শেষকৃত্য অনুষ্ঠান শুরু হয়।এর পূর্বে পুলিশের পক্ষ থেকে মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য সাবেক এই পুলিশ কর্মকর্তার শবদেহ পুলিশের পতাকা দিয়ে আচ্ছাদন করা হয় এবং গার্ড অব অর্ণার প্রদান করা হয়। তিনি ১৯৬৩ সালে শিক্ষানবিশ এস আই হিসাবে সিলেট জেলা পুলিশে যোগদান করেন।তিনি ১৯৭১ সালে সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসাবে কর্মরত থাকা অবস্থায় মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে ২৬ মার্চ সকালে রাজনীতিবিদ দের সহযোগিতায় দেশমাতৃকার জন্য মুক্তিযুদ্ধাদের সংগঠিত করার পাশাপাশি অস্ত্র প্রশিক্ষণ দানে অংশ নেন এবং বালাট ক্যাম্পে রিক্রুটিং অফিসার হিসেবে কাজ করেন। স্থিতধী বড়ুয়া হালিশহর চট্টগ্রামে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ানে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন।অবসরের পর তার নিজ এলাকা চট্টগ্রামে বসবাস করে আসছেন এবং সামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত ছিলেন।তিনি সমসাময়িক বিষয় ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কলাম লিখেন যা বিভিন্ন জাতীয় ও স্হানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।মৃত্যু কালে তিনি স্ত্রী,দুই ছেলে,তিন মেয়ে সহ নিকট আত্নীয় ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর বড়ছেলে তুহিন বড়ুয়া মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব,বড়মেয়ে মুক্তি বড়ুয়া সিলেটের ইমরান আহমেদ সরকারি মহিলা কলেজে সহযোগী অধ্যাপক, দ্বিতীয় ছেলে টিটু বড়ুয়া ব্যবসায়ি,ছোট দুই মেয়ের মধ্যে বিজয়া বড়ুয়া হাইকোর্টের আইনজীবী ও ত্রিপ্তি বড়ুয়া ব্যংকার।স্থিতধী বড়ুয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনার জন্য সকলের নিকট দোয়া ও আর্শীবাদ কামনা করা হয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ