অবশেষে এমপি মানিক-কালাম চৌধুরী,শামীম চৌধুরীর ঈমানি ঐক্য ভেঙে গেল

প্রকাশিত: ৮:২৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৮, ২০১৯

অবশেষে এমপি মানিক-কালাম চৌধুরী,শামীম চৌধুরীর ঈমানি ঐক্য ভেঙে গেল

বিশেষ প্রতিবেদক : অবশেষে ছাতক দোয়ারার এমপি মানিক ও পৌরমেয়র কালাম চৌধুরী , আওয়ামীলীগ নেতা শামীম চৌধুরীর ঈমানি ঐক্য ভেঙে গেছে ।উভয় নেতাদের অনুসারীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা ও আতংক বিরাজ করছে ।

ছাতক দোয়ারা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে এই দ্বন্দ্ব ছড়িয়ে পড়েছে।হামলা পাল্টা হামলা,মামলা হয়েছে ।একাধিক হামলায় শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েচিকিৎসাধীন আছেন।তৃণমূল পর্যায়ে এই দ্বন্দ্ব ছড়িয়ে আতংক বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হতে পারে বলে নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন।

আজ ৮ ডিসেম্বর একই স্থানে সমাবেশ ও প্রতিবাদ মিছিল আহবান করায় ছাতক পৌরশহরে ১৪৪ জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন ।

জানাযায়, দীর্ঘ ২০ বছর পর গত সংসদ নির্বাচনের সময় দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে উভয় গ্রুপের নেতারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনী প্রচারণা করেন।নেতাকর্মীদের মাঝেও আনন্দ উচ্ছ্বাস দেখা দেয়।

সাধারণ জনগণও সেই ঐক্যকে স্বাগত জানান ।কিন্তু নির্বাচনের পর বিজয় মিছিল ও আনন্দ সভাকে কেন্দ্র করে। উভয় গ্রুপের নেতাদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে।এ ছাড়া গত ১৪ মে ছাতক শহরে একটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কালামচৌধুরী গ্রুপের নেতাকর্মীরা একাধিক মামলায় কারা বরণ করেন ।এরপর থেকে ঐক্যের মধ্যে ফাটল ধরে।উভয় গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থায় চলে আসেন ।

ছাতকের বিবদমান দু’গ্রুপ একই সময়ে সমাবেশ আহবান করায় শহরবাসীর মধ্যে বিরাজ করছে অজানা আতংক।

এদিকে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান চিকিৎসা শেষে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরলে ১৩ সেপ্টেম্বর জেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভার আয়োজন করেন ।এই সভা শেষে জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক ও ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরীর  মধ্যে দীর্ঘ দিনের চলমান রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব ,মান অভিমানের অবসান করতে উদ্যোগ নেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মতিউর রহমান। উভয় নেতাকে হাত হাত রেখে ঈমানি ঐক্যের প্রতিজ্ঞা করান। সবাইকে দ্বন্দ্ব ,বিরোধ ভুলে গ্রুপিং না করে একসাথে কাজ করার আহবান করেন। সভায় উপস্থিত নেতারা একসাথে ঈমানি ঐক্যের প্রতিজ্ঞা করেন।

আওয়ামী লীগের উভয় গ্রুপে এখন বিরাজ করছে টান-টান উত্তেজনা। প্রায় দু’যুগ ধরে ছাতকের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন এমপি মানিক ও মেয়র কালাম বলয়ে বিভক্ত হয়ে আছে।

একাধিক জাতীয়  এবং স্থানীয় নির্বাচনেও উভয় গ্রুপের নেতা-কর্মীদের একে অন্যের প্রতিপক্ষ হয়ে কাজ করতে দেখা গেছে। রাজনৈতিক দ্বন্ধের কারনে ছাতকে উভয় গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে।

গত ২৮ নভেম্বর জাউয়াবাজারে এক পক্ষের মিছিলে অপর পক্ষ বাধা দেয়। এ নিয়ে বিবদমান দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা থেকেই ছাতকের আওয়ামী লীগের গ্রুপিং রাজনীতি আবারো উত্তপ্ত হয়ে উঠে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ খবর

আমাদের ফেইসবুক পেইজ