আযহারীর ওয়াজ মাহফিলে অতিথি লুৎফুর-কামরান!

প্রকাশিত: ৯:৪৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২০

আযহারীর ওয়াজ মাহফিলে অতিথি লুৎফুর-কামরান!

সিল-নিউজ বিডি-ডেস্ক :: জনপ্রিয় ও বিতর্কিত ইসলামী বক্তা মাওলানা মিজানুর রহমান আযহারী ২০ জানুয়ারি সিলেটের জৈন্তাপুরে আসছেন। উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের হাজারী সেনগ্রাম সমাজ কল্যান পরিষদ আয়োজিত তাফসীরুল কোরআন মাহফিলে বয়ান করার কথা রয়েছে তার।

এই তাফসীরুল কোরআন মাহফিলে প্রধান অতিথি করা হয়েছে সিলেট জেরা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমানকে আর বিশেষ অতিথি করা হয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরানকে।

ইসলামী বক্তা মিজানুর রহমান আযহারী জামায়াতের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। আযহারী বিভিন্ন ওয়াজে যুদ্ধাপরাধের মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলওয়ার হোসেন সাঈদীর পক্ষেও কথা বলেন বলে জানা গেছে। জনপ্রিয়তার পাশাপাশি ওয়াজে বিতর্কিত ও উষ্কানিমূলক কথা বলার কারণেও সমালোচিত তিনি। এমন অভিযোগে সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে তার বেশ কয়েকটি ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন।

এমন একজন বক্তার ওয়াজ মাহফিলে সিলেট আওয়ামী লীগের দুই শীর্ষ নেতার অতিথি হওয়া নিয়ে সমালোচনা দেখা দিয়েছে। জৈন্তাপুরের ওই তাফসীরুল কোরআন মাহফিলের পোস্টার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে মিজানুর রহমান আযহারীর সাথে আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফুর রহমান এবং কামরানেরও নাম রয়েছে।

আযহারীর ওয়াজে আওয়ামী লীগ নেতাদের অতিথি হওয়ার সমালোচনা করে কথাসাহিত্যিক স্বকৃত নোমান মঙ্গলবার ফেসবুকে লিখেন- আগামী ২০ জানুয়ারি মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী সিলেট যাচ্ছেন। জৈন্তাপুরের এক মাহফিলে তিনি ওয়াজ করবেন। এ মাহফিলের প্রধান অতিথি হচ্ছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ এ্যাডভোকেট মো. লুৎফর রহমান। বিশেষ অতিথি হচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। এ ওয়াজ মাহফিল উপলক্ষে ছাপা হওয়া একটি পোস্টার সেদিন কে যেন ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন। পোস্টারটি দেখে আঁতকে উঠেছিলাম। কাকে পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে আওয়ামী লীগ? শত্রুকে? আওয়ামী লীগ কি তার শত্রুমিত্র চেনে না? বোঝে না?

তবে এই আয়োজনের ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি  বলেন, আমি এই তাফসীরুল কোরআন মাহফিল সম্পর্কে কিছুই জানি না। আযহারীকেও চিনি না। আমাকে না জানিয়েই পোস্টারে আমার নাম দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ওই অনুষ্ঠানে আমার যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। কারণ আমি ১৮ জানুয়ারি টুঙ্গিপাড়া যাবো। ২০ তারিখে ঢাকা সিটি নির্বাচনের প্রচারণায় থাকবো। অনেক আগে থেকেই আমার এই কর্মসূচী নির্ধারিত ছিলো। ফলে জৈন্তাপুরের মাহফিলে অতিথি হওয়ার সম্মতি আমি কিভাবে দেবো?

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লুৎফুর রহমানের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের ফেইসবুক পেইজ