ইলিয়াস ‘গুম’ সরকার জড়িত, পর্দার পেছনে অন্যরাও থাকতে পারে: লুনা

প্রকাশিত: ৩:৫৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০২১

ইলিয়াস ‘গুম’ সরকার জড়িত, পর্দার পেছনে অন্যরাও থাকতে পারে: লুনা

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নিঁখোজ এম ইলিয়াস আলীকে নিয়ে রাজনীতি না করার অনুরোধ জানিয়েছেন তার স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা। একই সাথে নিখোঁজের প্রকৃত সত্য তুলে ধরার পাশাপাশি তার স্বামীকে জীবিত ফিরিয়ে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপি চেয়ারপারসনের এই উপদেষ্টা।

সোমবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।

সম্প্রতি এক ভার্চুয়াল সভায় এম ইলিয়াস আলীকে নিয়ে মির্জা আব্বাসের মন্তব্য নিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এই সভায় ইলিয়াস আলী নিখোঁজের জন্য বিএনপির কিছু নেতাকে দায়ী করেন মির্জা আব্বাস। এজন্য সরকার দায়ী নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘এখানে আমাদের দলের মহাসচিব আছেন, তাকে বলতে চাই, ইলিয়াস গুমের পেছনে আমাদের দলের যে বদমাইশগুলো রয়েছে, তাদেরকেও চিহ্নিত করার ব্যবস্থা করেন প্লিজ। এদেরকে অনেকেই চেনেন।’

তবে পরদিন সংবাদ সম্মেলন করে নিজের আগেরদিনের বক্তব্য থেকে সরে আসেন আব্বাস। ইলিয়াস নিখোঁজে সরকার নয় বিএনপি নেতারা জড়িত- এমন কোনো মন্তব্য করেননি বলেও দাবি করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।

ইলিয়িস আলী নিঁখোজের পর থেকে বিএনপির রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন তার স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা। মির্জা আব্বাসের বিস্ফোরক মন্তব্য করা ওই ভার্চুয়াল সভায় তিনিও যুক্ত ছিলেন।

মির্জা আব্বাসের বক্তব্যের বিষয়ে লুনা বলেন, ‘আমি তার পরদিনের সংবাদ সম্মেলন দেখেছি, আব্বাস ভাই তার অবস্থান পরিষ্কার করেছেন। এখানে তিনি হয়তো যেটা বুঝাতে চেয়েছেন আমার সেটা বুঝতে পারিনি। তবে উনি নেগেটিভ কিছু বলবেন এটা আমি মনে করি না। কারণ তিনি ইলিয়াসকে খুবই ভালোবাসতেন।’

লুনা আরও বলেন, ‘আমি মনে করি সরকারই জড়িত। কারণ এতো বড় কর্মযজ্ঞ সম্পাদন করা একজন ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়। এর সঙ্গে অবশ্যই প্রশাসন জড়িত। একটা ঘটনা যখন সংঘটিত হয়, সেক্ষেত্রে অনেকে অনেকভাবে জড়িত্ থাকতে পারে। যখন কোনো নাটক মঞ্চস্থ হয় তখন পর্দার পেছনে কারিগরি লোক থাকে, যাদের আমরা দেখতে পাই না। সেক্ষেত্রে অনেকে জড়িত থাকতে পারে। কিন্তু আমি তো জানি না কারা জড়িত। সন্দেহ করে তো কাউকে বলতে পারি না, কে জড়িত আর কে নয়।’

ইলিয়াস আলীর স্ত্রী বলেন, ‘আমি জানতে চাই এ গুমের পেছনে রহস্য কী? একই সঙ্গে আমার স্বামীকে ফেরত চাই। এ পরিস্থিতি নিয়ে, তার গুম নিয়ে কেউ রাজনীতি করুক, এটা আমরা চাই না। রাজনীতির উর্ধ্বে থেকে সঠিকভাবে তদন্তের মাধ্যমে ইলিয়াস আলীকে ফেরত চাই।’

২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল ঢাকার বনানী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ নিখোঁজ হন বিএনপির তৎকালীন সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি ইলিয়াস আলী। বিএনপির পক্ষ থেকে প্রথম থেকেই অভিযোগ করা হয়, তাকে সরকারই ‘গুম’ করে রেখেছে। তার সন্ধানের দাবিতে সে সময় সিলেটের বিশ্বনাথে সপ্তাহব্যাপী হরতাল পালিত হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ