এতিম শিশুকে নগ্ন করে নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৭:৪৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৬, ২০১৯

এতিম শিশুকে নগ্ন করে নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত গ্রেফতার

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি :: হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে টাকার জন্য পাঁচ বছরের এতিম শিশু জিসানকে নির্যাতনের ঘটনায় স্বপন মিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার সকালে জেলার বানিয়াচংয়ের খাগাউড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার স্বপন উপজেলার চরগাঁওয়ের মনাই মিয়ার ছেলে। এর আগে নির্যাতনের সময় ধারণ করা ভিডিও ভুক্তভোগী জিসানের মায়ের কাছে পাঠায় অভিযুক্ত স্বপন। নির্যাতনের দৃশ্য সইতে না পেরে সৌদি আরব থেকে ছুটে এসেছেন মা। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেন হবিগঞ্জের এসপি মোহাম্মদ উল্ল্যা। এসপি জানান, নবীগঞ্জ পৌর শহরের চরগাঁওয়ের সুফি মিয়ার সঙ্গে সুমনা বেগমের বিয়ে হয়। সুফির মৃত্যুর পর ছোট দুটি শিশুর ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে সৌদি আররে পাড়ি জমান সুমনা। প্রবাসে যাওয়ার আগে তার দুই শিশুকে দেবর স্বপন মিয়ার কাছে রেখে যান। কিন্তু সৌদি আরবে শান্তিতে থাকতে পারেননি তিনি। টাকার জন্য শিশুদের নির্যাতন করতে থাকেন স্বপন। হতভাগা মা সন্তানকে নির্যাতন থেকে বাঁচাতে ধাপে ধাপে স্বপনের কাছে টাকাও পাঠান। কিন্তু তার নির্যাতন থেমে থাকেনি। সম্প্রতি শিশু জিসানকে নগ্ন করে নির্যাতন করা হয়। সেই নির্যাতনের দৃশ্য ভিডিও করে টাকা চেয়ে সুমনার কাছে পাঠানো হয়। এই দৃশ্য সইতে না পেরে ২ নভেম্বর দেশে ছুটে আসে মা সুমনা। মঙ্গলবার নির্যাতনের ঘটনা জানাজানি হলে এলাকায় আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। এ ঘটনায় বুধবার রাতে সুমনা আক্তার বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় স্বপনকে আসামি করে একটি মামলা করেন।

এসপি আরো জানান, পুরো ঘটনাটি এখনো তদন্তাধীন রয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে আরো কারো সম্পৃক্ততা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়া সুমনাকে বউ হিসেবে দাবি করছে স্বপন। কিন্তু স্বপনের সঙ্গে বিয়ের কথা অস্বীকার করছেন সুমনা। বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত এসপি শৈলেন চাকমা, এএসপি এসএম রাজু আহমেদ ও নবীগঞ্জ থানার ওসি আজিজুর রহমানসহ পুলিশ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বাবাহারা ছোট দুই শিশুকে দাদা-দাদী আর দেবরের কাছে রেখে জীবিকার তাগিদে গৃহকর্মী হিসেবে সৌদি আরব যান সুমনা বেগম। আর যাওয়ার আগে সন্তানদের দেখাশোনার জন্য স্বপনকে কিছু টাকা দেন তিনি। সৌদি আরব যাওয়ার দুই মাস যেতে না যেতে তার সন্তানদের ওপর শুরু হয় নির্যাতন। টাকার দেয়ার জন্য ছয় বছর বয়সী আপন ভাতিজাকে নগ্ন করে নির্যাতন করে। পরে নির্যাতনের সেই ভিডিও সুমনার কাছে পাঠান স্বপন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ খবর

আমাদের ফেইসবুক পেইজ