এবার ক্রেতা সেজে শিকারির কাছ থেকে বিপন্ন ডাহুক উদ্ধার করলেন সাংবাদিক

প্রকাশিত: 6:51 PM, November 22, 2019

এবার ক্রেতা সেজে শিকারির কাছ থেকে বিপন্ন ডাহুক উদ্ধার করলেন সাংবাদিক

মৌলভিবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজার নানান নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে ক্রেতা সেজে শ্রীমঙ্গল উপজেলার জীবনগঞ্জ বাজার এলাকার শিকারী শামীম মিয়ার কাছ থেকে দুটি বিপন্ন ডাহুক পাখি উদ্ধার করা হয়েছে! আজ শুক্রবার সকালে ভুনবীর চৌমোহনায় একজন শিকারী বিক্রির জন্য পাখি নিয়ে এসেছেন বিশ্বস্ত সূত্রে খবরটি জানতে পায় সাংবাদিক হৃদয়!খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায় পাখি নিয়ে শিকারী শামীম মিয়া বাড়ি চলে গেছে।

খোঁজ খবর নিয়ে অতঃপর ক্রেতা সেজে শিকারী শামীমের সাথে দুটি বিপন্ন ডাহুক ৮০০০ হাজার টাকা মূল্যে মুঠোফোনে রফাদফা হলে আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় স্থানীয় সংবাদকর্মী রিমন ইসলাম এবং অভিজিৎ চৌধুরীকে সাথে নিয়ে শিকারির বাড়ি পৌঁছে যায় সাংবাদিক হৃদয়!শিকারির কাছ থেকে পাখি দুটি নিয়ে গোপনে বন বিভাগকে ফোন দিলে তাৎক্ষণিক বনবিভাগের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শিকারী শামীমকে ডাহুক পাখি সহ বনবিভাগের অফিসে নিয়ে আসে! পরে আর কোনোদিন পাখি শিকার করবেনা মর্মে মুচলেকা দিয়ে প্রথমবারের মতো শিকারী শামীমকে ছেড়ে দেয়া হয়! প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের কর্মকর্তা মোনায়েম হোসেন জানান সাংবাদিক হৃদয় আমাদের আগে থেকেই ইনফরমেশন দিয়ে রেখেছিলো তাই আমরা প্রস্তুত ছিলাম!তার ফোন পাওয়ার পর পরই ঘটনাস্থল থেকে শিকারী শামীমকে দুটি বিপন্ন ডাহুক সহ আমরা ধরতে সক্ষম হই! তিনি জানান প্রথমবারের মতো আর কোনোদিন পাখি শিকার করবেনা মর্মে লিখিতভাবে মুচলেকা নিয়ে শিকারির শামীমের পিতা ইয়াতুন মিয়ার হাতে তাকে তুলে দেয়া হয়েছে! সাংবাদিক হৃদয় জানান,এই শিকারি শামীম দীর্ঘদিন ধরে হাওর অঞ্চল থেকে পাখি শিকার করে আসছে!দুটি বিপন্ন ডাহুক তার কাছে রয়েছে জানতে পেরে সকাল থেকেই দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর আজ সন্ধ্যায় তার বাড়ির ঠিকানায় পৌঁছে যাই!স্থানীয় বন বিভাগের লোকজনের সহায়তা নিয়ে বিপন্ন ডাহুক দুটি উদ্ধার করতে পেরেছি!সাদা বুকে জলচর পাখি ‘ডাহুক’।

এর ইংরেজি নাম White-breasted Waterhen. এরা গড়ে ৩২ সেন্টিমিটার পর্যন্ত দীর্ঘ হয়। এরা সাধারণত দিবাচর। একা বা জোড়ায় থাকে। উদ্ভিদ ঢাকা সব ধরনের জলাভূমিতে বিচরণ করে। প্রাকৃতিক পরিবেশ বিপন্ন হওয়ার কারণে এদের জীবনও হুমকির সম্মুখীন। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইন (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) এর ধারা অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের ফেইসবুক পেইজ