এ্যাকশনে মেয়র আরিফ : সাতদিন বন্ধ থাকবে সিলেটের তিনটি মার্কেট

প্রকাশিত: ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ৯, ২০২০

এ্যাকশনে মেয়র আরিফ : সাতদিন বন্ধ থাকবে সিলেটের তিনটি মার্কেট

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটে প্রতিদিন বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে আতঙ্ক । ইতোমধ্যে সিলেট বিভাগকে রেডজোনে ভাগ করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আর তাই নগরবাসীকে করোনা সংক্রমন থেকে রক্ষার্থে কঠোর হয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় সিলেট নগরীর জিতু মিয়ার পয়েন্ট থেকে শুরু করে, তালতলা, ফুটপাত ও বন্দরবাজার, লালদীর্ঘীর পারের মার্কেটে অভিযান চালানো হয় । এসময় সিসিকের মেয়র আরিফ ব্যবসায়ীদের সিলেটবাসীকে রক্ষায় সবাই এগ্রিয়ে আসার আহ্বান জানান। সেই সাথে ব্যবসায়ীদের অনুরোধ করেন আগামী ৭ দিন যাতে মার্কেটগুলো বন্ধ থাকে। মেয়রের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ীরা সংশ্লিষ্ট মার্কেটের ব্যবসায়ীরাও।

এ ব্যাপারে হাসান মার্কেট দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিয়াজ মো.আজিজুল করিম জানান, সিসিক মেয়র মহোদয়ের অনুরোধে আমাদের মার্কেট আগামী সাতদিন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা চাই এই পরিস্থিতিতে সিলেটবাসীর দাড়াতে তাই সকল ব্যবসায়ী এগ্রিয়ে এসেছেন। এক প্রশ্নেরে জবাবে নিয়াজ বলেন সাতদিনের ভিতরে মার্কেটের দোকান খোলা মিললে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভিযানকালে মেয়র বলেন, নগরীর রাস্তা-ফুটপাতে কোনো ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে ৫০দিন মাঠে থাকব। নগরবাসীকে সুরক্ষিত রাখতে যে কোনো ধরণের কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি করোনা পরিস্থিতিতে প্রতিদিন এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান মেয়র।

তিনি অভিযানে সর্বাত্নক সহযোগিতার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এসময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সিলেটের সাধারণ মানুষের করোনা চিকিৎসার জন্য সিলেট বিভাগে ৫০০শয্যার একটি করোনা হাসপাতাল বরাদ্দ দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, এক্ষেত্রে যেকোনো সহযোগিতায় সিলেট সিটি করপোরেশন সরকারের পাশে থাকবে।

তিনি বলেন, আজ থেকে প্রাইভেট ক্লিনিক, হাসাপাতালে চিকিৎসাসেবা শুরু হবে। কিন্তু প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা ব্যয় সাধারণ মানুষের পক্ষে মেটানো সম্ভব হয়।এজন্য সাধারণ দরিদ্র মানুষের জন্য আলাদা একটি করোনা হাসপাতাল বরাদ্দ প্রয়োজন।

ফুটপাতে অভিযানকালে নগরীর সড়কে গণপরিবহণে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাতায়াতকারী যাত্রীদের নামিয়ে দেন। তিনি পরিবহণ চালকদের সতর্ক করেন।

অভিযানে ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব, পুলিশ সদস্য ও সিসিকের কর্মকর্তার উপস্থিত ছিলেন ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ