ওসির আটতলা বাড়ি, হাইকোর্টে ব্যারিস্টার সুমন

প্রকাশিত: ৩:২১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২২

ওসির আটতলা বাড়ি, হাইকোর্টে ব্যারিস্টার সুমন

সিলনিউজ বিডি ডেস্ক :: রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলামের আট তলা বাড়িসহ বিপুল সম্পদের অনুসন্ধান চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিটটি করেন হবিগঞ্জের এই ছেলে।

রিটে ওসি মনিরুলের সম্পদের অনুসন্ধানের নির্দেশনার পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নিতে বিবাদীদের নিস্ক্রিয়তাকে কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। রিটে স্বরাষ্ট্রসচিব, আইনসচিব, পুলিশপ্রধান, দুদকসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

‘এভাবে চলতে দেয়া যায় না, এভাবে চলতে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছে হাইকোর্ট। ওসির সম্পদের অনুসন্ধান চেয়ে করা রিটের শুনানিকালে এ মন্তব্য করে হাইকোর্ট। দুদকের কাছে একটা আবেদন করে আগামী সপ্তাহে ফের আবেদন নিয়ে যেতে বলেছে আদালত। পরে রিটটি শুনানির জন্য আগামী ২১ আগস্ট পর্যন্ত মুলতবি করেছে আদালত।

এর আগে সোমবার ‘ঢাকায় ওসির আট তলা বাড়িসহ বিপুল সম্পদ’ শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী।

প্রতিবেদনটি দেখে আদালত তাকে লিখিত আবেদন নিয়ে যেতে পরামর্শ দেন। আজ তিনি রিট আবেদন করেন। বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের বেঞ্চে আজ শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী। সোমবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের বেঞ্চ রিটের পরামর্শ দেয়।

বিষয়টি আদালতের নজরে আনা ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে, বিষয়টি আদালতের নজরে আনা দরকার। দুদকের তদন্তের জন্য এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ মামলা।’

তিনি বলেন, ‘দেশে অসংখ্য সৎ পুলিশ অফিসার আছে, কিন্তু এই ওসির মতো যদি সকলেই এত সম্পদ বানান, তাহলে সৎ অফিসার যারা, তারা মনে অনেক বেশি কষ্ট পাবেন। এর ফলে দেশে আর সৎ অফিসার নাও হতে পারেন।

‘এভাবে অসৎ অফিসাররা যদি ট্রেন্ড তৈরি করেন, তাহলে সৎ অফিসার খুঁজে পাওয়া যাবে না। এ জন্য বিষয়টি আদালতের নজরে নিয়ে এসেছি। আদালত শুনেছেন। শুনে আদালত বলেছেন, এটা তো ঠিক না।

‘তখন আদালত দুদকের আইনজীবীকে ডেকেছেন। দুদকের আইনজীবীও বলেছেন, এটা খুবই হুমকিস্বরূপ; এটা হতাশাজনক। তখন আদালত আমাকে পিটিশন নিয়ে যেতে বলেছেন। আমি আগামী ১০ আগস্ট বুধবারই এ বিষয়ে পিটিশন দায়ের করব।’

গত ৫ আগস্ট একটি দৈনিক প্রথম আলোয় ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলামের সম্পদ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। এতে বলা হয়, ঢাকায় আট তলা বাড়ি করেছেন ওসি। তিনি বানাচ্ছেন আরেকটি ডুপ্লেক্স বাড়ি। ঢাকার কেরানীগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জে তার রয়েছে চারটি প্লট।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, রাজধানীর মোহাম্মদপুর হাউজিং সোসাইটিতে এক মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি দখলেরও অভিযোগ রয়েছে ওসি মনিরের বিরুদ্ধে।

এতে আরও বলা হয়, পুলিশের একজন পরিদর্শক হয়ে ওসি মনিরুল কীভাবে এত সম্পদের মালিক হয়েছেন, তা নিয়ে পুলিশ বিভাগে আলোচনা চলছে। বর্তমানে তিনি নবম গ্রেডে ২২ হাজার টাকা স্কেলে সাকল্যে সর্বোচ্চ ৫০ থেকে ৭০ হাজার টাকা বেতন পান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31      
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ