কমলগঞ্জে ডোবা থেকে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

প্রকাশিত: ১:১২ অপরাহ্ণ, জুন ৩০, ২০২০

কমলগঞ্জে ডোবা থেকে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

স্বপন দেব, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের কুরমা চা বাগানের একটি ডোবা থেকে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সচীন নায়েক (১৬) নামের এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সে কুরমা চা বাগানের মুক্তিযোদ্ধা মোকেশ নায়েকের ছোট ছেলে।

রোববার বিকাল থেকে সে নিখোঁজ হলে আজ সোমবার (২৯ জুন) বিকাল সাড়ে ৫ টায় ডেম্প(ডোবা) থেকে ভাসমান অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী জানান, রোববার বিকাল থেকে কিশোর সচীন নিখোঁজ ছিল। সোমবার বিকালে কুরমা চা বাগানের একটি ডেম্পের পানিতে তার লাশ ভাসমান দেখে চা বাগানের লোকজন তাদের পরিবারকে খবর দেয় এবং এলাকাবাসীর সহযোগিতায় লাশটি পানি থেকে তুলে।

কমলগঞ্জ উপজেলা মকল বাহিনীরায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর কাদির জানান, ঘটনাস্থলে যাবার আগেই স্থানীয় লোকজন লাশটি উদ্ধার করে।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান মঙ্গলবার(৩০ জুন) সকালে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশের একটি ল ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল তৈরী করেছে। পারিবারিকভাবে কোন অভিযোগ না থাকলে ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরে মতামতের ভিত্তিতে শেষ কৃত্যের জন্য লাশটি তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।কমলগঞ্জে ডোবা থেকে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

স্বপন দেব, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের কুরমা চা বাগানের একটি ডোবা থেকে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সচীন নায়েক (১৬) নামের এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সে কুরমা চা বাগানের মুক্তিযোদ্ধা মোকেশ নায়েকের ছোট ছেলে।

রোববার বিকাল থেকে সে নিখোঁজ হলে আজ সোমবার (২৯ জুন) বিকাল সাড়ে ৫ টায় ডেম্প(ডোবা) থেকে ভাসমান অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী জানান, রোববার বিকাল থেকে কিশোর সচীন নিখোঁজ ছিল। সোমবার বিকালে কুরমা চা বাগানের একটি ডেম্পের পানিতে তার লাশ ভাসমান দেখে চা বাগানের লোকজন তাদের পরিবারকে খবর দেয় এবং এলাকাবাসীর সহযোগিতায় লাশটি পানি থেকে তুলে।

কমলগঞ্জ উপজেলা মকল বাহিনীরায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর কাদির জানান, ঘটনাস্থলে যাবার আগেই স্থানীয় লোকজন লাশটি উদ্ধার করে।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান মঙ্গলবার(৩০ জুন) সকালে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশের একটি ল ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরতহাল তৈরী করেছে। পারিবারিকভাবে কোন অভিযোগ না থাকলে ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরে মতামতের ভিত্তিতে শেষ কৃত্যের জন্য লাশটি তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ