করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথম জনসমক্ষে ট্রাম্প, পরেননি মাস্ক

প্রকাশিত: ১:১১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১১, ২০২০

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর প্রথম জনসমক্ষে ট্রাম্প, পরেননি মাস্ক

অনলাইন ডেস্ক

কোভিড-১৯ ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার পর হাসপাতাল থেকে ফিরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথম জনসমক্ষে এলেন। স্থানীয় সময় গতকাল শনিবার বিকালে হোয়াইট হাউসের বারান্দা থেকে দেয়া বক্তব্যে তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে সোশ্যালিস্টদের (সমাজবাদী) হাত থেকে রক্ষা করার আহ্বান জানিয়েছেন। খবর আলজাজিরার।

ট্রাম্প করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ১০ দিন পর জনসমক্ষে হাজির হন। এদিনও তিনি মাস্ক পরেননি। অথচ তিনি এখনও করোনা নেগেটিভ হননি।

ট্রাম্প তার বক্তব্যে বলেন, করোনা আক্রান্তদের সাহায্যার্থে অর্থ সহায়তা দেবেন তিনি।

১৫ মিনিটের বক্তব্যে রিপাবলিকান প্রার্থী যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বর্ণবাদবিরোধী প্রতিবাদ ও বিক্ষোভের সমালোচনা করেন। আবারও অভিযোগ করেন, ডেমোক্র্যাটরা নাগরিক সহিংসতা সমর্থন করছেন। ট্রাম্পের ভাষায় হোয়াইট হাউসের এই সমাবেশ ছিল ‘শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ ও আইনশৃঙ্খলার’ সমাবেশ।

ট্রাম্প অভিযোগ করেন, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনের নামে কৃষ্ণাঙ্গদের এবং হিস্পানিকদের দোকানপাট লুটতরাজ হচ্ছে। ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন এসব লুটতরাজকে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ বলে সমর্থন জানাচ্ছেন। বক্তব্যে ট্রাম্পকে কৃষ্ণাঙ্গ ও হিস্পানিক ভোটারদের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করতে দেখা যায়।

করোনোভাইরাসকে ‘চীনা ভাইরাস’ উল্লেখ করেন ট্রাম্প। বলেন, তার প্রশাসন এই ভাইরাস মোকাবেলায় খুব ভালো কাজ করছে। তিনি বলেন, দ্রুতই এই ভাইরাস শেষ হয়ে যাবে। ভ্যাকসিন চলে আসছে, অন্যান্য ওষুধও প্রস্তুত রয়েছে।

কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার পর তিন দিন হাসপাতালে ছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গত সোমবার তিনি হাসপাতাল থেকে হোয়াইট হাউসে ফেরেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাভাইরাসমুক্ত কিনা, তা নিয়ে হোয়াইট হাউস কোনো তথ্য দেয়নি। সাংবাদিকরা জানতে চাওয়ার পরও জানানো হয়েছে, হোয়াইট হাউসের কাছে প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্য সম্পর্কে নতুন কোনো তথ্য নেই।

করোনা শনাক্তের ১০ দিনের মাথায় ট্রাম্পের গণসমাবেশে হাজির হওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ট্রাম্প আক্রান্ত হওয়ার পর হোয়াইট হাউসের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হন। তবে শনিবার রাতে ট্রাম্পের চিকিৎসক শন কোনলি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ট্রাম্প নিয়ম মেনেই আইসোলেশন ভেঙেছেন। এখন তার থেকে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা নেই।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ