কানাইঘাটে মাজারের লাখ লাখ টাকার গাছ সাবাড়!

প্রকাশিত: ১১:০৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২১

কানাইঘাটে মাজারের লাখ লাখ টাকার গাছ সাবাড়!

কানাইঘাট প্রতিনিধি :: কানাইঘাটের সাতবাঁক ইউনিয়নের জুলাই পশ্চিম পীরনগর গ্রামের শাহ আতাউল্লার (র.) মাজার ও কবরস্তানের লাখ লাখ টাকার গাছ বিক্রির অভিযোগ উঠেছে।

এ নিয়ে এলাকাবাসী সম্প্রতি সিলেটের জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে ভুয়া মাজার কমিটির নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে গণস্বাক্ষরসহ অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে দর্পনগর তহসীল অফিসের তসিলদার শাহাব উদ্দিন কয়েক দিন আগে সরজমিনে শাহ আতাউল্লা (র.) এর মাজার ও কবরস্থানের ৬ একর জায়গা পরিদর্শন করেন।

স্বঘোষিত মাজার কমিটির কয়েজন সদস্যদের যোগসাজসে ১০/১২ লাখ টাকার বড় বড় গাছ কাটার প্রমাণ পেয়েছেন। ঘটনা ধামাচাপা দিতে জড়িতরা গাছের গোড়া পর্যন্ত উঠিয়ে নিয়ে গেছে যা সরজমিনে সোমবার মাজার ও কবরস্তানে গিয়ে দেখা যায়।

এ সময় বাদী পীরনগর গ্রামের আনিসুল হক ও অভিযোগকারীরা জানান, শাহ আতাউল্লা (র.) মাজার ও কবরস্থান একটি প্রাচীনতম স্থান। পীরে কামিল আতাউল্লার মৃত্যুর পর তার নামে সরকারিভাবে মাজার ও কবরস্থানের জন্য ৬ একর জায়গা বরাদ্দ দেয়া হয়। এ কবরস্থানে লাখ লাখ টাকার দামী গাছপালা রয়েছে।

মৃত মনতাজ আলীর ছেলে আনিসুল হক জানান, মাজার কমিটির নামে অবৈধভাবে জুলাই পীরনগর গ্রামের মৃত আরজান আলী ছেলে ময়ুর আহমদ ও একই গ্রামের ফরিদ আহমদ, নিজাম উদ্দিন, আহমদ আলী ও সাতপারী গ্রামের কুটি মিয়ার ছেলে এবাদসহ কয়েকজন মিলে মাজার ও কবরস্থানের গাছ বিক্রি করে সব টাকা আত্মসাত করেছেন।

এমনকি তারা কবরস্থানের জায়গা থেকে মাটি বিক্রি করেছেন ও মাজার এবং কবরস্থানে কোন ধরনের হেফাজত না করে বছরের পর বছর ধরে শাহ আতা উল্লাহর (র.) নামে অবৈধভাবে মাজার কমিটি করে উল্লেখিতরা কবরস্থানের ৬ একর জায়গায় অবস্থিত বড় বড় বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা বিক্রি করে প্রায় অর্ধকোটি টাকা আত্মসাত করেছেন।

অভিযোগ দায়েরের পর থেকে বিবাদীরা দরখাস্তকারীদের নানাভাবে ভয়-ভীতি প্রদর্শন, এমন কি অভিযোগটি ধামাচাপা দিতে অপতৎপরতা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনসহ সরকারি কবরস্থানের জায়গা থেকে গাছ বিক্রির ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ এবং মাজার ও কবরস্তানের হেফাজতের জন্য সরকারি কমিটি গঠনে দ্রুত স্থানীয় প্রশাসনকে এগিয়ে আসার আহব্বান জানান তারা।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ