কাল মহাসপ্তমী উৎসব না হলেও কানাইঘাটে পূজার আমেজের কমতি নেই

প্রকাশিত: ৫:৫৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০

কাল মহাসপ্তমী উৎসব না হলেও কানাইঘাটে পূজার আমেজের কমতি নেই

আমিনুল ইসলাম কানাইঘাটঃ
হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজায় এবার উৎসব না হলেও কানাইঘাটে পূজার আমেজের কোন কমতি নেই। যথাযোগ্য মর্যাদায় ষষ্ঠীপূজা সম্পন্নের পর আজ মহাসপ্তমী। আজ মহাসপ্তমীর দিনে সকালে ত্রিনয়ণী দেবীদুর্গার চক্ষুদান করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পৌরসভার উষারঞ্জন দেবের বাড়ির পূজা মন্ডপ ও রায়গড় গ্রামের বিল্পব কান্তি দাস অপুর বাড়ির পূজা মন্ডপ ঘুরে দেখা গেছে গত বছরের মত এবার সাজসজ্জ্বা ও মাইক না বাজলেও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে পূজার আমেজের কোন শেষ নেই। নতুন নতুন পোষাক পড়ে সকল বয়সী লোক মা দুর্গাকে ভক্তি জানাতে এসেছেন। মন্ডপে মন্ডপে চলছে ধর্মীয় উপাচার। কানাইঘাট উপজেলার সার্বজনীন ৩০টি মন্ডপে ষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে বুধবার শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু হয়েছে। দেবীর বাহন সিংহের পিঠে চড়ে দুর্গা দেবী এসেছেন। সঙ্গে নিয়ে এসেছেন গণেশ, কার্তিক, লক্ষ্মী আর সরস্বতীকে। আগামী সোমবার বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে এই মহানুষ্টান। শান্তিপূর্ণ ভাবে শারদীয় দুর্গাপূজা সম্পন্নের লক্ষে কানাইঘাটের প্রতিটি মন্ডপে নিñিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ভানু লাল দাস ও সাধারণ সম্পাদক ভজন লাল দাস আশাবাদ ব্যাক্ত করে বলেন প্রতি বছরের ন্যায় কানাইঘাটে এবারো শান্তিপূর্ণ ভাবে শারদীয় দুর্গাপূজা সম্পন্ন হবে। তাদের মতে আইনশৃঙ্খলা সন্তোষজনক। তারা বলেন এক সময় দেশের সীমান্তবর্তী কানাইঘাট উপজেলায় দুর্গাপূজা সীমাবদ্ধ ছিল। বিগত কয়েক বছর থেকে পুরো কানাইঘাটে পূজা আয়োজন হচ্ছে মহাসমারোহে। কেবলমাত্র মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে এবার তারা কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক উৎসবকে বর্জন করে মা দুর্গারই পূজা করছেন। এছাড়াও সুষ্ঠুভাবে পূজা উদযাপনের লক্ষে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সেই সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়নের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন্ত ব্যানার্জি সংশ্লিষ্ট ব্যাক্তিদের নির্দেশনা দিয়েছেন। এদিকে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম পুলিশের পক্ষ থেকে শালীন আচরণের ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রতিনিধিদের সহযোগীতা কামনা করেছেন। এবং বিজয়া দশমীতে রুট অনুসরণ করে সূর্যাস্তের পূর্বেই প্রতিমা বিসর্জন দেওয়ার জন্য আয়োজকদের প্রতি অনুরুদ জানিয়েছেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ