কোভিড ১৯ জৈন্তাপুর উপজেলার গন্তব্য কোথায় জানেন না উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা

প্রকাশিত: ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

কোভিড ১৯ জৈন্তাপুর উপজেলার গন্তব্য কোথায় জানেন না উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা

জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ৬ জুন ১২টি, ৭ জুন ১০টি এবং ৮ জুন ৬টি মোট ৩০টি নমুনা সংগ্রহ করে ঘটিত উপজেলা মেডিকেল টিম। এসব নমুনা সংগ্রহ করে সিলেটে প্রেরন করা হলে সিলেটের অন্য সব উপজেলার নমুনার সাথে জৈন্তাপুর উপজেলার গুলো ঢাকায় পাটিয়ে দেওয়া হয়, কিন্তু সিলেটের বেশ কয়েকটি উপজেলার ৭ জুনের রিপোর্ট চলে এসেছে আজ ১৬ জুনের ঢাকা থেকে ঘোষিত রিপোর্টে অতচ জৈন্তাপুর উপজেলার ৬ জুনের রিপোর্ট আজও আসেনি। এতে হতাশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন পূর্বে যাদের পজেটিভ রিপোর্ট এসেছিল, এসব রোগী দ্বিতীয় দফায় নমুনা দিয়েছিল সুস্থ্যতা নিশ্চিৎতের জন্য। এমনকি ৬জুন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর প্রধান হিসাব রক্ষক আকবর হোসেন ও ৮ জুন পরিসংখ্যান অফিসের মুক্তাদির হোসেন মুক্তা সহ বেশ কয়েক জন দ্বিতীয় দফায় নমুনা দিয়েছেন, নিজেকে সুস্থ্যতা মনে করলেও রিপোর্ট নাআসা পর্যন্ত কর্মস্থলে ফিরতে পারছেননা তারা। অতচ ১০ জুনের রিপোর্ট চলে এসেচে সিলেটের ল্যাব থেকে। ১৩ জুন ১০টি, ১৪ জুন ২২টি এবং ১৫ জুন ৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়, এসব সিলেটের ল্যাবে রয়েছে পরীক্ষর জন্য বলে নিশ্চৎত করেন মেডিকেল টিম। তবে ঢাকায় প্রেরিত নমুনা নিয়ে সংসয়ে রয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। এসব নমুনার কার্যকারীতা কতদিন তাকবে বা রিপোর্ট কবে আসবে এর সটিক উত্তর পাওয়া যায়নি উনার কাছ থেকে। এ ব্যাপারে উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে ঘটিত কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আমিনুল হক সরকার বলেন, যে ভাবে বিলম্বে রিপোর্ট আসচে তানিয়ে আমরা চিন্তিত, আজ জেলা সমন্বয় মিটিংয়ে এ বিষয়ে দাবি উত্তাপন করেছি, ঢাকা থেকে রিপোর্ট আসতে অনেক দেরি হয়েযায় এ নিয়ে আমরা সংকুচিত, আসাকরি সিলেটের নমুনা আর ঢাকায় পাটানো লাগবেনা এখন সিলেটেই পরীক্ষা হবে এবং দু’এক দিন পর রিপোর্ট চলে আসবে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ