কোম্পানীগঞ্জে নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৬:২৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

কোম্পানীগঞ্জে নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

অনলাইন ডেস্ক
‘নিরাপদ দেশ গড়ি, নারী নির্যাতন বন্ধ করি’- এই স্লোগানে সারাদেশে একযোগে একই সময়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ। একইভাবে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ থানার ৬টি বিট পুলিশিং কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ।

আজ শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ১ নম্বর ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়ন বিট পুলিশের আয়োজনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

১ নম্বর ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়নের বিট পুলিশ অফিসার এসআই মোস্তাক আহমদের সঞ্চালনায় ও কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম নজরুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (জেলা বিশেষ শাখা) আমিনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১ নম্বর ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘মাননীয় আইজিপি মহোদয়ের নির্দেশে সারাদেশে ৬ হাজার ৯শ ১২টি উপজেলায় একযোগে আমরা ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনবিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ করছি। নিরাপদ সমাজ গড়ি, নারী নির্যাতন বন্ধ করি। নারীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা বন্ধে সমানভাবে নারী-পুরুষের সচেতনতা প্রয়োজন। ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বন্ধ করি, নারীবান্ধব দেশ গড়ি। নারীর প্রতি সহিংসতা নিরসনে আপনার পুলিশ আপনার পাশে। নারী নির্যাতন কিংবা যেকোনো অপরাধের তথ্য আপনারা আমাদের দেবেন। আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

ধর্ষণ ও নির্যাতনবিরোধী সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সচিব নাসির উদ্দিন, পাড়ুয়া আনোয়ারা উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজের প্রভাষক আক্তার হোসেন তালুকদার, সহকারী শিক্ষক সৈয়দুজ্জামান ও শফিকুল ইসলাম, নভাগী বাহাদুরপুর মার্কাজুল ইলম ইসলামীয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মুফতি তাওফিক আহমদ, ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য বিলাল মিয়া, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আলী হোসেন, সংরক্ষিত নারী সদস্য নূরুন নাহার, উদ্যোক্তা সোহেল আহমদ, ইউপি অফিস সহকারী সিরাজুল ইসলাম, গ্রাম পুলিশ সিলেট জেলার সভাপতি ফারুক আহমদ ফালু, গ্রাম আদালতের সহকারী ইকবাল হোসেন প্রমুখ। সমাবেশে স্কুল-কলেজের ছাত্রী, নারী, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, মসজিদের ইমামসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় বক্তারা বর্তমান সময়ে দেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিভিন্ন চিত্র তুলে ধরে বলেন, ধর্ষণ ও নির্যাতনরোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি সমাজের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের নিজ নিজ অবস্থান থেকে সমাজে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সমাজ থেকে ধর্ষণ এবং নারী নির্যাতনের মতো ঘৃণ্য অপরাধ নির্মূল করা সম্ভব হবে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ