কোম্পানীগঞ্জে পাহাড়ি ঢল ও টানা বর্ষণে অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত

প্রকাশিত: ৭:২২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৯

কোম্পানীগঞ্জে পাহাড়ি ঢল ও টানা বর্ষণে অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত

কবির আহমদ, কোম্পানীগঞ্জ থেকে :: পাহাড়ি ঢল ও টানা বর্ষণ সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে উপজেলার অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। উপজেলা সদরের সাথে প্রত্যন্ত গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এতে বিপাকে পড়েছেন পানিবন্দি হাজার হাজার সাধারণ মানুষ।

ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তলিয়ে গেছে উপজেলা সদরের মাঠ, টিএনটি রোড ও কোম্পানীগঞ্জ গ্রামের রাস্থাসহ গ্রাম অঞ্চলের বিভিন্ন সড়ক।

এদিকে ভারতের মেঘালয়ে ভারি বর্ষণ ও বৃষ্টিপাতের কারণে বাংলাদেশের অভ্যন্তরের ধলাই নদীর অববাহিকায় পানি বৃদ্ধির কারণেই উপজেলার সবকটি হাওর তলিয়ে গেছে। যার ফলে কৃষকের ব্রীজ তলা নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

ধলাই নদী দিয়ে আসা পাহাড়ি ঢলের পানির কারণে উপজেলার পূর্ব ইসলামপুর, পশ্চিম ইসলামপুর, উত্তর রণিখাই, দক্ষিণ রণিখাই, তেলিখাল ও ইসাকলস ইউনিয়নের প্রায় ৮০ ভাগ গ্রামের রাস্তাঘাট ও বাড়িঘর পানিতে প্লাবিত হয়ে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

বাড়ী ঘর প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি গোচারণ ভূমি পানি বন্ধী হওয়ায় গো-খাদ্য সঙ্কট দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী বলেন, আমি বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। পানিবন্দী মানুষজন বিপদে আছে। বন্যাকবলিত মানুষদের উপজেলা প্রসাশন থেকে সর্বোচ্চ সহযোগীতা করা হবে বলে তিনি জানান।
কোম্পানীগঞ্জে পাহাড়ি ঢল ও টানা বর্ষণে অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত

কবির আহমদ, কোম্পানীগঞ্জ থেকেঃ
পাহাড়ি ঢল ও টানা বর্ষণ সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে উপজেলার অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে। উপজেলা সদরের সাথে প্রত্যন্ত গ্রামের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এতে বিপাকে পড়েছেন পানিবন্দি হাজার হাজার সাধারণ মানুষ।

ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তলিয়ে গেছে উপজেলা সদরের মাঠ, টিএনটি রোড ও কোম্পানীগঞ্জ গ্রামের রাস্থাসহ গ্রাম অঞ্চলের বিভিন্ন সড়ক।

এদিকে ভারতের মেঘালয়ে ভারি বর্ষণ ও বৃষ্টিপাতের কারণে বাংলাদেশের অভ্যন্তরের ধলাই নদীর অববাহিকায় পানি বৃদ্ধির কারণেই উপজেলার সবকটি হাওর তলিয়ে গেছে। যার ফলে কৃষকের ব্রীজ তলা নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

পাহাড়ি ঢলের পানি বৃদ্ধির ফলে উপজেলা সদর হাইস্কুল, প্রাথমিক বিদ্যালয় ও জামিয়া রহমানিয়া মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তলিয়ে গেছে।

ধলাই নদী দিয়ে আসা পাহাড়ি ঢলের পানির কারণে উপজেলার পূর্ব ইসলামপুর, পশ্চিম ইসলামপুর, উত্তর রণিখাই, দক্ষিণ রণিখাই, তেলিখাল ও ইসাকলস ইউনিয়নের প্রায় ৮০ ভাগ গ্রামের রাস্তাঘাট ও বাড়িঘর পানিতে প্লাবিত হয়ে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

বাড়ী ঘর প্লাবিত হওয়ার পাশাপাশি গোচারণ ভূমি পানি বন্ধী হওয়ায় গো-খাদ্য সঙ্কট দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী বলেন, আমি বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। পানিবন্দী মানুষজন বিপদে আছে। বন্যাকবলিত মানুষদের উপজেলা প্রসাশন থেকে সর্বোচ্চ সহযোগীতা করা হবে বলে তিনি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের ফেইসবুক পেইজ