খোঁজ মিললেও মায়ের কোলে ফিরে আসেনি দোয়ারাবাজারের আনোয়ার

প্রকাশিত: ২:৫৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০১৯

খোঁজ মিললেও মায়ের কোলে ফিরে আসেনি দোয়ারাবাজারের আনোয়ার

এনামুল কবির মুন্না :: তিন বছর পর ছেলের খোঁজ মিললেও মায়ের কোলে ফিরে আসেনি দোয়ারাবাজারের আনোয়ার। সে উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের শাহিনুর মিয়া ও তাসলিমা আক্তারের পুত্র। পারিবারিক অবস্থা অস্বচ্ছল থাকায় অন্নবস্ত্র যোগাতে বছর তিনেক পূর্বে ৬ সন্তানসহ ঢাকা শহরে ছুটে যান তাসলিমা আক্তার। কাজের সন্ধানে ঘুরতে থাকলে তখন গুলিস্তান এলাকা থেকে ৭ বছরের শিশু সন্তান আনোয়ার হারিয়ে যায়। শুধু তাই নয়, ওই সময় ওমর ফারুক নামে তাদের আরেকটি সন্তানও হারিয়ে যায়। বিশাল ঢাকা শহরের অলি-গলি ঘুরতে ঘুরতে অবশেষে কিছুদিন পর দুই সন্তানের জন্য আহাজারি করে বুকভরা বেদনা নিয়ে হতাশ হয়ে নিজ গ্রামে ফিরে আসেন তাসলিমা আক্তার। পরবর্তীতে ছিন্নমুল ওই পরিবারের লোকজন অর্ধাহারে অনাহারে মানবেতর জীবনযাপন করতে থাকেন। তিন বছর পর সোমবার (২ ডিসেম্বর) সিল বিডি নিউজ অনলাইন নিউজ পোর্টালে আনোয়ারের ছবি সম্বলিত একটি খবর দোয়ারাবাজার উপজেলার তরুণ সাংবাদিক এনামুল কবির মুন্না নজরে আসে,খবরটি আনোয়ারের মায়ের কানে যায়।হারানো পুত্র আনোয়ারের সন্ধান পেয়ে পাগলপ্রায় মা তাসলিমা আক্তার খুশিতে আত্মহারা হয়ে উঠেন। ওইদিন রাতে সন্ধান দাতা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উমর আল কাশেমের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কুঁড়িয়ে পাওয়া আনোয়ারকে অন্নবস্ত্রসহ ভালোভাবে তার যত্ন নিলেও সোমবার রাতের খাবারের পর হঠাৎ তার চোঁখে ফাঁকি দিয়ে আবারও নিরুদ্দেশ হয়ে যায় আনোয়ার। তবে তার সন্ধানে তিনি খোঁজাখুঁজি অব্যাহত রেখেছেন বলেও জানান উমর আল কাশেম। এদিকে ভাগ্যের নির্মম পরিহাস! তাসলিমা আক্তার এ খবর শোনার পর থেকে পুত্রশোকে বারাবার জ্ঞান হারিয়ে ভুমিতে লুটিয়ে পড়েন। জ্ঞান ফিরে আসলে মঙ্গলবার দুপুরে সন্তানদের খোঁজে তিনি আবারও ছুটে যান ঢাকা অভিমুখে। লোমহর্ষক এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ খবর

আমাদের ফেইসবুক পেইজ