গণধর্ষণকারী ও খুনীদের শাস্তির দাবীতে যুব ও ছাত্রমৈত্রীর প্রতিবাদ সমাবেশ

প্রকাশিত: ১১:১৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০২০

গণধর্ষণকারী ও খুনীদের শাস্তির দাবীতে যুব ও ছাত্রমৈত্রীর প্রতিবাদ সমাবেশ

অনলাইন ডেস্ক :: দেশব্যাপী ধর্ষণ, খুন, নারী-শিশু নির্যাতন ও পুলিশী হেফাজতে যুবক খুন সহ সকল প্রকার দুর্নীতির প্রতিবাদে ‘রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ’ শ্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ যুব মৈত্রী ও ছাত্র মৈত্রী সিলেটের যৌথ উদ্যোগে প্রতিবাদ সমাবেশ সোমবার বিকালে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি কমরেড সিকান্দর আলী বলেন, করোনা মহামারীর এই সংকটময় মূহুর্তে বিশ্ববাসী যখন শংকিত, লক্ষ লক্ষ নারী পুরুষ যখন কর্মহীন, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা যখন চরম আকার ধারণ করেছে, ঠিক সে সময়ে দেশব্যাপি ক্রমাগতভাবে বেড়েছে নারী নির্যাতন। শিশু থেকে প্রৌঢ় নারী কেউই আজ নিরাপদ নয়। নারীরা আজ পরিবারে, কর্মক্ষেত্রে, পরিবহনে, মাদ্রাসায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিরাপদে চলতে পারে না। অথচ স্বাধীনভাবে চলাফেরা করা নারীর সাংবিধানিক অধিকার।

তিনি আরো বলেন, ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে ছাত্র নামধারী কুলাঙ্গাররা দেশের ছাত্র রাজনীতির গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসকে কলঙ্কিত করেছে। বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও বিচারের দীর্ঘসূত্রিতা এবং গডফাদারদের আশ্রয়ে প্রশ্রয়ে এসব নরপশুরা ধর্ষণ,খুন, ইভটিজিং, ছিনতাই এর মত অপরাধ করার সাহস পাচ্ছে। তিনি গণধর্ষণসহ নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতা বন্ধে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্যান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন।

যুব মৈত্রী সিলেট জেলা কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মো. আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে ও ছাত্রমৈত্রী সিলেট জেলা সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা চৌধুরীর পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি সিলেট জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রানী সেন শম্পা, যুব মৈত্রী কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হিমাংশু মিত্র, সিলেট জেলার যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ খোকন, সৌমিত্র সেন মিহির, সদস্য হিমেল আলম চৌধুরী, রুহুল আমীন, সেলিম আহমদ, ফজর আলী, সোহাগ আহমদ, ছাত্রমৈত্রীর শিক্ষা ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সালেহ আহমদ, সদস্য মুহিবুর রহমান, খাজাঞ্চি ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রবিউল ইসলাম, লয়লুছ আলী হৃদয়, মিলন উরাং প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, প্রগতিশীল রাজনৈতিক কর্মীরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করলেই আইসিটি এ্যাক্টে মামলা হয় কিন্তু অবাধে পর্ণগ্রাফি চর্চার মাধ্যেমে দেশের যুবসমাজেরা যে বিপথে যাচ্ছে যার ফলে ধর্ষণের মত ঘটনা ঘটছে এ ব্যাপারে সরকার উদাসীন। বক্তারা নারী অধিকার নিশ্চিত করণে সকল নির্যাতনের দ্রুত শাস্তি দাবী করেন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ