‘গালওয়ানের সংঘর্ষ ইতিহাসের সংক্ষিপ্ত একটি অধ্যায়’

প্রকাশিত: ৭:৪৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০২০

‘গালওয়ানের সংঘর্ষ ইতিহাসের সংক্ষিপ্ত একটি অধ্যায়’

অনলাইন ডেস্ক :

গালওয়ান উপত্যকায় চীনা ও ভারতের সংঘর্ষের ঘটনাকে ‘অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ও ইতিহাসের একটি সংক্ষিপ্ত অধ্যায়’ বলে মনে করেন ভারতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত সুন ওয়েইডং।

গত ১৫ জুনের সেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষকে ‘ইতিহাসের দৃষ্টিকোণ থেকে একটি সংক্ষিপ্ত মুহূর্ত’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পার্থক্য বজায় রেখে একটি সাধারণ সিদ্ধান্তে পৌঁছানো উচিত দু’পক্ষের।

হিন্দুস্তান টাইমস ও আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, গত ১৮ আগস্ট চীন-ভারত যুব ওয়েবমিনারে এমন মন্তব্য করেছিলেন চীনা রাষ্ট্রদূত। মঙ্গলবার সেই বক্তব্য লিখিত আকারে প্রকাশ করে চীনা দূতাবাস।

চীনা রাষ্ট্রদূত ওয়েইডং বলেন, এই একুশ শতকে প্রতিবেশী দু’টি দেশের সম্পর্ক কখনও পিছনের দিকে হাঁটতে পারে না। বরং তা আগামী দিনে আরও মজবুত হয়ে উঠবে।

সীমান্তে উত্তেজনা সত্ত্বেও নয়াদিল্লির প্রতি বেংজিংয়ের ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ মনোভাব রয়েছে দাবি করে সুন বলেন, ‘প্রতিপক্ষের পরিবর্তে ভারতকে সহযোগী এবং বিপদের পরিবর্তে সুযোগ হিসেবে দেখে চীন। কথাবার্তা ও আলোচনার মাধ্যমে উপযুক্তভাবে মতবিরোধ সামলাতে হবে এবং যত দ্রুত সম্ভব দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আবার আগের মতো করতে হবে।’

তবে চীনা রাষ্ট্রদূতের এমন মন্তব্যের বিষয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখনও কোনো প্রতিক্রিয়া জানায় নি।

প্রায় তিন মাস ধরে ভারত-চীনের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে ঘাঁটি গেড়েছে চীন। বার বার তাদের সঙ্গে আলোচনা করেও এ বিষয়ে এখনও কোনো সমাধানে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

গালওয়ান, হটস্প্রিং, ফিঙ্গার পয়েন্ট ফোর থেকে সেনা সরালেও ভারতীয় ভূখণ্ডের প্যাংগং, দেপসাঙে এখনও ঘাঁটি গেড়ে বসে আছে চীনা সেনারা।

গত আড়াই মাসে সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে বেশ কয়েক দফা আলোচনা চালিয়েছে ভারত ও চীন। কিন্তু পূর্ব লাদাখ নিয়ে বিতর্কের মীমাংসার সম্ভাবনা দেখা যায়নি।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ