গুনাহ মাফের কিছু আমল

প্রকাশিত: ১:০৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২১

গুনাহ মাফের কিছু আমল

আবদুর রশিদ

মানুষ গুনাহ করে। নবী-রসুল ছাড়া কোনো মানুষ গুনাহ থেকে মুক্ত নয়। আল্লাহ মানুষের দুর্বলতা সম্পর্কে জানেন এবং মানুষ যাতে গুনাহ থেকে মুক্তি পায় সেজন্য রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের মাধ্যমে অসংখ্য পথ বাতলে দিয়েছেন। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি প্রতি নামাজের পর ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ, ৩৩ বার আল্লাহু আকবার পড়ে এবং ১০০ বার পূর্ণ করার জন্য একবার লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকা লাহু লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুয়া আলা কুল্লি শাইইন কাদির পড়ে তার সব গুনাহ মাফ করে দেওয়া হয় যদিও তা সাগরের ফেনাপুঞ্জের সমান হয়।’ মুসলিম।

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি প্রতিদিন ১০০ বার বলবে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকা লাহু লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুয়া আলা কুল্লি শাইইন কাদির অর্থাৎ আল্লাহ ছাড়া আর কোনো ইলাহ নেই। তিনি এক, তাঁর কোনো শরিক নেই। সব রাজত্ব তাঁর। সব প্রশংসা তাঁর। তিনি সব বস্তুর ওপর শক্তিশালী- সে ১০টি গোলাম আজাদ করার সমান সওয়াব লাভ করবে। আর তার নামে লেখা হবে ১০০ নেকি এবং তার নাম থেকে ১০টি গুনাহ মুছে ফেলা হবে। আর সেদিন সন্ধ্যা হওয়া পর্যন্ত সে শয়তানের (আসর বা ওয়াসওয়াসা) থেকে সংরক্ষিত থাকবে এবং কিয়ামতের দিন কেউ তার চেয়ে ভালো আমল আনতে পারবে না। একমাত্র সেই ব্যক্তি ছাড়া যে তার চেয়ে বেশি আমল করেছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘যে ব্যক্তি প্রতিদিন ১০০ বার সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি পড়বে তার সব গুনাহ মাফ করে দেওয়া হবে, যদিও তা (সংখ্যাধিক্যের দিক দিয়ে) সমুদ্রের ফেনাপুঞ্জের সমান হয়।’ বুখারি, মুসলিম।
আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘এমন দুটি বাক্য আছে যা মুখে উচ্চারণে হালকা (সহজে উচ্চারিত হয়), কিন্তু (ওজনে) ভারী এবং আল্লাহর কাছে প্রিয় তা হচ্ছে- সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি সুবহানাল্লাহি আজিম।’ বুখারি, মুসলিম।

রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘তাহাজ্জুদ নামাজ অবশ্যই পড়বে। কেননা তা নেক বান্দাদের তরিকা ও আল্লাহর নৈকট্যলাভের উপায়। তাহাজ্জুদ গুনাহ থেকে বিরত রাখে এবং গুনাহ মাফ হওয়ার উপায়। এতে শারীরিক সুস্থতাও লাভ হয়।’ ইবনে খুজাইমা।

আবু মুসা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আমি কি তোমাকে জান্নাতের একটি গুপ্তধনের কথা জানাব না। আমি বললাম অবশ্যই হে আল্লাহর রসুল! তিনি বললেন, তা হলো- লা হাওলা ওয়ালা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ।’ বুখারি, মুসলিম।

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘আমার কাছে সুবহানাল্লা ওয়াল হামদু লিল্লাহ ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া আল্লাহু আকবার বলা দুনিয়ার সব জিনিসের চেয়ে বেশি প্রিয়।’ মুসলিম। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সব ধরনের গুনাহ থেকে দূরে থাকার তৌফিক দান করুন।

লেখক : ইসলামবিষয়ক গবেষক।
সুত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
24252627282930
31      
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ