গোলাপগঞ্জ আ.লীগের নতুন কমিটির দুই নেতা নিয়ে তৃণমূলে অসন্তোষ

প্রকাশিত: ৩:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২১

গোলাপগঞ্জ আ.লীগের নতুন কমিটির দুই নেতা নিয়ে তৃণমূলে অসন্তোষ

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটের গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটি গত ৫ জুন ঘোষিত হয়েছে। এর মধ্যে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির দুই নেতাকে নিয়ে তৃণমূল আওয়ামী লীগ ও নবকমিটির অনেকের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

সেই দুই নেতা হচ্ছেন- সহসভাপতি জহির আহমদ ও শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মন্নান কয়েছ। এ দুজনের মধ্যে গোলাপগঞ্জ উপজেলার হেতিমগঞ্জস্থ মছকাপুর গ্রামের মরহুম গৌছ উদ্দিন (লাল মিয়া)-এর ছেলে আব্দুল মন্নান কয়েছ ‘রাজাকারপুত্র’ হওয়ার পরও তার গুরুত্বপূর্ণ পদ পাওয়া নিয়ে স্থানীয় তৃণমূল আওয়ামী লীগের মধ্যে বিস্ময় দেখা দিয়েছে। বিরাজ করছে অসন্তোষ। ‘রাজাকারপুত্র’ কয়েছকে শ্রম বিষয়ক সম্পাদক থেকে অব্যাহতি দেয়ার দাবি জানিয়ে গণস্বাক্ষরসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের কাছে একটি আবেদন করেছেন ৩ নং ফুলবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

তৃণমূলের দাবি- আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোপূর্বে ঘোষণা দিয়েছেন, ‘কোনো স্বাধীনতাবিরোধীর সন্তান যেনো আওয়ামী লীগের কোনো পদ-পদবিতে থাকতে না পারেন।’ প্রধানমন্ত্রীর সেই ঘোষণার পরও ‘রাজাকারপুত্র’ কয়েছকে শ্রমবিষয়ক সম্পাদক দেওয়ায় উপজেলাজুড়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অপরদিকে, গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটিতে সহসভাপতি হিসেবে স্থান পেয়েছেন জহির উদ্দিন। তিনি উপজেলার ভাদেশ্বর কলাশহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী- কোনো সরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী রাজনৈতিক দলের পদ নিতে পারবেন না। তাই এ ক্ষেত্রে সরকারের আইনকে অবজ্ঞা করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহির উদ্দিনকে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটিতে সহসভাপতির পদ দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইকবাল আহমদ চৌধুরী বলেন- আমি অসুস্থ, হাসপাতালে। পরে এ বিষয়ে কথা বলবো।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, সবাইকে সন্তুষ্ট করে কমিটি ঘোষণা করা সম্ভব নয়। আব্দুল মন্নান কয়েছ ‘রাজাকারপুত্র’ ও জহির উদ্দিন সরকারি স্কুলের প্রধান শিক্ষক- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি ‘এসব মিথ্যা’ বলে মুঠোফোনের সংযোগ কেটে দেন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ