ঘুষ দেওয়া নেওয়ায় নবীজির হুঁশিয়ারি

প্রকাশিত: ১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

ঘুষ দেওয়া নেওয়ায় নবীজির হুঁশিয়ারি

মাওলানা সেলিম হোসাইন আজাদী :; হাদিস শরিফে রসুল (সা.) বলেছেন, ‘আর-রাশি ওয়াল মুরতাশি কিলা হুমা ফিননার। অর্থ : ঘুষ যে দেয় এবং নেয়, দুই জনই জাহান্নামি।’ আরেকটি হাদিসে রসুল (সা.) বলেছেন, এমন একটা সময় আসবে যখন মানুষ ঘুষ দেওয়া-নেওয়াকে সামাজিক নিয়ম বানিয়ে ফেলবে। অন্য হাদিসে নবীজি (সা.) বলেছেন, ‘মানুষ ঘুষ দেবে-নেবে উপহারের নামে।’ হাদিসগুলো মিশকাত শরিফ থেকে নেওয়া। ঘুষ হলো যে কাজের যোগ্য আপনি নন, কিন্তু সে কাজ করার জন্য কর্তৃপক্ষকে আর্থিক কিংবা যে কোনো ধরনের সুবিধা দেওয়াই ঘুষ। ইসলামের নবী ঘুষ দাতা-গ্রহীতা দুই জনকেই জাহান্নামি বলেছেন। বাংলাদেশের আইনেও ঘুষ দেওয়া-নেওয়া দুটোই দন্ডনীয় অপরাধ। অথচ ঘুষই এ দেশের সবচেয়ে অপ্রতিরোধ্য অপরাধ। সব সরকার কিছু না কিছু দুর্নীতি রোধে সফল হয়েছে। কিন্তু ঘুষের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়ে কোনো সরকারই এ দেশে খুব একটা সফল হয়নি। ঘুষ যারা প্রতিরোধ করবে তারাই ঘুষ দেওয়া-নেওয়ায় অপ্রতিরোধ্য ছিল এবং আছে, তাই ঘুষ নামক জাহান্নামি এ কাজটি আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিতে দিন দিন বেড়েই চলছে। একটা সময় নির্দিষ্ট কিছু কাজে ঘুষ লাগত। এখন হেন কোনো কাজ নেই ঘুষ ছাড়া হয়। বিশ্বাস করেন অথবা না-ই করেন, ইমাম নিয়োগেও রমরমা ঘুষ বাণিজ্য হয়ে থাকে। শিক্ষা, সেবার মতো পবিত্র কাজগুলোতে ঘুষের আদান-প্রদানের কথা তো এখন সবার জানা। হে মুসলমান! আমাদের ধর্ম আমাদের নবী এবং অনুসরণীয় ব্যক্তিত্বরা ঘুষের সন্দেহে উপহারকেও চরম ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছেন। আর সেই আমিই আজ ঘুষের টাকার প্রতি চকচকে লোভের চোখে ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে থাকি! ছিঃ এত অধঃপতন হয়েছে আমাদের।

বিখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী এ পি জে আবদুুল কালাম তার আত্মজীবনীতে লিখেন- পৃথিবীর সব বাবার মতোই আমার বাবাও সন্তানপ্রেমিক ছিলেন। ভয়াবহ রকম রাগ করতে কখনোই তাকে দেখা যায়নি। একবার বাবা গ্রামের পঞ্চায়েতপ্রধান নির্বাচিত হন। পর দিন কেউ একজন এসে বাবাকে একটি উপহার দিয়ে যায়। বাবা বাসায় না থাকায় আমিই উপহারটি গ্রহণ করি। বাবা এলে আমি আনন্দের সঙ্গে উপহারের কথা বলি। তখন বিনা আভাসেই যেন তুফান শুরু হয়ে গেল। এমন ভয়ঙ্কর রাগ করতে বাবাকে আমি আগে-পরে আর কখনো দেখিনি। বাবা বললেন, এত দিন কেন ওরা আমাকে উপহার দেয়নি? আজ দায়িত্ব পেয়েছি আর উপহার নিয়ে এসেছে। এটা ঘুষ ছাড়া আর অন্য কি? আর তুমিইবা কোন বুদ্ধিতে এই উপহার নিয়ে নিলে? এরপর আর কখনোই এমনটি করবে না। আবদুল কালাম লিখেন, বাবার এই আচরণ আমার মনে এমনভাবে গেঁথে যায়, ঘুষ তো দূরের কথা অন্য যে কোনো অপরাধ আমার সামনে পড়লে আমি আঁতকে উঠতাম।
লেখক : বিশিষ্ট মুফাস্সিরে কোরআন ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব
সুত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ