চলে যাচ্ছেন গিবসন ডমিঙ্গো কি থাকছেন?

প্রকাশিত: ১০:৪১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২২

চলে যাচ্ছেন গিবসন ডমিঙ্গো কি থাকছেন?

বিসিবি সিইও নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘ডমিঙ্গোর চুক্তির বিষয়ে বাইরে যে আলোচনা হচ্ছে, সেটা আমরা শুনেছি। তবে চুক্তির মেয়াদ নিয়েই আমরা ভাবছি।’
ক্রীড়া ডেস্ক

সিরিজ জেতেনি। তারপরও মুমিনুলদের এবারের নিউজিল্যান্ড সফরকে ঐতিহাসিক বলাই যায়! গত দুই দশকের মধ্যে এবারই প্রথম নিউজিল্যান্ডকে তাদের মাটিতে হারিয়েছে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত এক টেস্ট জয়ের সাফল্য নিয়ে মুমিনুল, শরিফুল, লিটনরা ঢাকায় আসছেন শনিবার। তাদের সঙ্গে আসছেন না হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। তিনি ক্রাইস্টচার্চ থেকে উড়ে গেছেন জন্মভূমি দক্ষিণ আফ্রিকা। আসছেন না পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। দলের সঙ্গে না আসায় দুই কোচের চুক্তির বিষয়টি আবারও আলোচনায় উঠে এসেছে। গতকাল বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস মিডিয়ার মুখোমুখিতে জানিয়েছেন, ডোমিঙ্গোর সঙ্গে বিসিবির যে দুই বছরের নতুন চুক্তি হয়েছে, সেটা কন্টিনিউ করবে। এ মাসের পর গিবসন আর টাইগারদের বোলিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন না বলেও জানিয়েছেন। বিসিবি ক্রিকেট অপরারেশন্স চেয়ারম্যানের মন্তব্য অনুযায়ী এ যাত্রায় রক্ষা পেতে পারেন মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর নেতৃত্বাধীন নির্বাচক প্যানেল। যদিও দলের পারফরম্যান্সের গ্রাফ ধারাবাহিক না হওয়ায় বিসিবি তাদের ওপর সন্তুষ্ট ছিল না। তাই মার্চ পর্যন্ত তাদের সময় দিয়েছে বিসিবি।

গিবসনের দুই বছরের চুক্তির মেয়াদ শেষ ২০ জানুয়ারি। চুক্তি অনুযায়ী নিউজিল্যান্ড সিরিজই ছিল তার শেষ। বিসিবি তার সঙ্গে নতুন করে চুক্তি করেনি। সে জন্যই হয়তো অভিমানে ক্যারিবীয় কোচ যোগ দিচ্ছেন পিএসএলের দল মুলতান সুলতানে। পিএসএল শুরু ২৭ জানুয়ারি। ২০২০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার চার্লস ল্যাঙ্গেভেল্টের জায়গায় গিবসনকে নিয়োগ দিয়েছিল বিসিবি। গিবসনের না থাকার বিষয়ে বিসিবি ক্রিকেট অপারেশন্স চেয়ারম্যান বলেন, ‘গিবসনের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাচ্ছে এ মাসে। ও বলেছে আমাদের সঙ্গে আর চালিয়ে নিতে চায় না। এটা তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। তারা খুব পেশাদার, আবেগী নন। তারা পেশাদার বলে জানে, কোন পরিস্থিতিতে ম্যাচ হতে পারে, টুর্নামেন্ট হতে পারে, ভালো রেজাল্ট নাও আসতে পারে।’
৩০ নভেম্বর চুক্তির মেয়াদ শেষ ছিল ডমিঙ্গোর। বিসিবির আগ্রহ ছিল না দক্ষিণ আফ্রিকার কোচের সঙ্গে নতুন করে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর। ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজ জয়ের সাফল্য তার চুক্তির বেজলাইন শক্ত করেছিল। কিন্তু টি-২০ বিশ্বকাপ এবং ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ তার চুক্তিকে নড়বড়ে করে দিয়েছিল পুনরায়। কিন্তু মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে মুমিনুলদের চোখ ধাঁধানো জয়, তার অবস্থান ফের শক্তিশালী করেছে। তার ওপর বিসিবি নতুন করে ভালোমানের কোচ পাচ্ছে না বলে ডমিঙ্গোর ওপর আস্থা রাখছে। যদিও ক্রিকেটপাড়ায় গুঞ্জন, আগস্টের পর নতুন করে দায়িত্ব তুলে দেওয়া হবে শ্রীলঙ্কার চন্ডিকা হাতুরাসিংহের ওপর। হাতুরাসিংহে এক সময় কোচ ছিলেন টাইগারদের। অ্যাশওয়েল প্রিন্সের জায়গায় নতুন ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে নেওয়া হয়েছে একসময়কার টাইগারদের মূল কোচ জেমি সিডন্সকে। ডমিঙ্গোর দায়িত্ব নিয়ে বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপরারেশন্স চেয়ারম্যান বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে বিকল্প নতুন কোনো হেড কোচ নেই। আমরা জেমি সিডন্সকে নিয়েছি ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে। সে ফেব্রুয়ারিতে আমাদের এখানে আসবে। কিন্তু আমাদের কোনো হেড কোচ নেই। কিছুদিন মাননীয় সভাপতিও জানিয়েছেন, যেহেতু বিকল্প হেড কোচ নেই এবং ডমিঙ্গোর সঙ্গে চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে, তাকেই চালিয়ে নিচ্ছি।’

তারপরও কথা থেকে যাচ্ছে। ডমিঙ্গোর কোচিং নিয়ে কথা উঠেছে প্রতিনিয়ত। আর ক্রিকেটারদের সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়েও কথা উঠেছে। এসব বিবেচনায়, বিসিবি সভাপতি দেশের বাইরে থেকে আসার পর হয়তো ডমিঙ্গোর বিষয়ে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারে বিসিবি। ক্রিকেটপাড়ায় এমনই আলোচনা চলছে। এ প্রসঙ্গে বিসিবি সিইও নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘ডমিঙ্গোর চুক্তির বিষয়ে বাইরে যে আলোচনা হচ্ছে, সেটা আমরা শুনেছি। তবে চুক্তির মেয়াদ নিয়েই আমরা ভাবছি।’

২১ জানুয়ারি শুরু বিপিএল। এরপর ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ এবং এরপর দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করবে টাইগাররা।

বিডি-প্রতিদিন

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
17181920212223
24252627282930
31      
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ