চীনের সঙ্গে উত্তেজনায় ভারতে রাম মন্দিরের নির্মাণ কাজ বন্ধ

প্রকাশিত: ৭:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০২০

চীনের সঙ্গে উত্তেজনায় ভারতে রাম মন্দিরের নির্মাণ কাজ বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক :; চীনের সঙ্গে সীমান্ত সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের কাজ আপাতত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত।

মন্দিরের অছি পরিষদ শনিবার এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে বলে ভয়েস অব আমেরিকা জানিয়েছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে কবে রাম মন্দির নির্মাণ শুরু হবে তা পরে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

গত ১০ই জুন ভিত পূজার মাধ্যমে রাম মন্দির নির্মাণের সূচনা করা হয়েছিল।

ভয়েস অব আমেরিকার খবরে বলা হয়, চীনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত সংঘর্ষ এখন যেই পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে, তাতে মন্দির নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাওয়া হলে জনগণের বিরূপ প্রতিক্রিয়া হতে পারে।

এই ভেবে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো আপাতত অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির কাজ পিছিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ভারতের উত্তর প্রদেশের শহর অযোধ্যায় ১৯৯২ সালে ধ্বংস করা হয়েছিল বাবরি মসজিদ। এ নিয়ে এই অঞ্চলে বহু বছর ধরেই হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে বিবাদ চলছিল।

বিতর্কিত এই স্থান নিয়ে রাম জন্মভূমি ট্রাস্ট ও সুন্নি ওয়াকিফ বোর্ড সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়। অবশেষে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে এ বিতর্কিত জায়গায় রাম মন্দির তৈরির পক্ষেই চূড়ান্ত রায় দেয় ভারতের সুপ্রিমকোর্ট।

বদলে মুসলিম পক্ষকে মসজিদ তৈরির জন্য অযোধ্যার মধ্যেই ৫ একর জমি দেয়ার নির্দেশ দেয় সুপ্রিমকোর্ট। রায় নিয়ে মুসলিমদের মধ্যে অসন্তোষ রয়েছে।

সরকারের পক্ষ থেকে এপ্রিলেই রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ঘোষণা দেয়া হয়। কিন্তু লকডাউনের জেরে পুরো প্রক্রিয়ায় পেছাতে হয়। দিল্লি নির্বাচনের তিন দিন আগে লোকসভায় সেই ট্রাস্ট গঠনের কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সরকারপক্ষের এমপিরা সেদিন ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি তুলেছিলেন। গত ২৬ মে মন্দিরের নির্মাণস্থলে যান রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের চেয়ারম্যান মোহন্ত নৃত্যগোপাল দাস। সেখানে পূজার পর রাম মন্দিরের কাজ শুরুর ঘোষণা দেন তিনি।

বিতর্ক চলাকালীন এতদিন অস্থায়ী একটি টিনের কাঠামোর উপরেই পুজো হতো রামলালার। গত মার্চ মাসে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ রামলালার মূর্তি মানস ভবনে স্থানান্তরিত করেন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
      1
23242526272829
3031     
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ