চুল পরিচর্যার ভুলগুলো

প্রকাশিত: ২:০৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০২২

চুল পরিচর্যার ভুলগুলো

অনলাইন ডেস্ক :: পাতলা চুল ঠিকঠাক, সুন্দর রাখতে বিশেষ যত্নের প্রয়োজন। অনেক সময় আমরা এমন কিছু ভুল করে ফেলি যাতে পাতলা চুল বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চুলের যত্ন করার পাশাপাশি এড়িয়ে চলুন এসব ভুল। আজ রইল চুলের পরিচর্যার ভুলগুলো…

সুন্দর চুল যে কোনো নারীর সৌন্দর্য বহু গুণে বাড়িয়ে দেয়। তাই তো সুন্দর চুল পেতে কত যত্ন এবং কত কিছুর পেছনে দৌড়াতে থাকি আমরা। কিন্তু চুলের ভালো করতে গিয়ে, কিছু ভুল করে ফেলার ফলে আবার চুলের ক্ষতি করে ফেলি! আজকে আমরা আপনাদের জানাব চুলের যত্নে আমাদের করা ভুলগুলো সম্পর্কে। চলুন জেনে নেই কীভাবে আমরা করে থাকি চুলের যত্নে ভুল।

সপ্তাহে দু-একদিন শ্যাম্পু ব্যবহার

আমাদের চারপাশে ধুলোবালি আর নানা দূষণে চুল হয়ে যায় নাজেহাল। তাই আমাদের দেশের আবহাওয়ায় রোজ নিয়ম করে শ্যাম্পু করা উচিত। তবে যারা ঘর ছেড়ে খুব একটা বাইরে বেরোন না তারা সপ্তাহান্তে তিন দিন করে শ্যাম্পু করতে পারেন। আর এই নিয়ম যে কোনো ঋতুতেই মেনে চলা উচিত। শীতকালে ধুলোর প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় খুশকির মতো সমস্যাও দেখা দেয় বেশি। তাই নিয়ম করে শ্যাম্পু করতে ভুলবেন না।

রোজ কন্ডিশনিং করতে নেই

এই ধারণা থেকে বেরিয়ে আসুন। রোজ শ্যাম্পু করে চুল পরিষ্কার তো করলেন কিন্তু চুলের সঠিক ময়েশ্চার! এ তো শ্যাম্পুর সঙ্গেই ধুয়ে গেছে। তাহলে বুঝুন, কেন রোজ শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনিং জরুরি! কিন্তু তাই বলে তেলতেলে চুলে কন্ডিশনিং করতে যাবেন না। এতে আপনার অস্বস্তির মাত্রা আরও বেড়ে যাবে। সঙ্গে মাথার স্ক্যাল্পের ক্ষতিসাধন ঘটতে পারে। শুষ্ক চুলে প্রতিবার, মিশ্র চুলে একদিন পর পর কন্ডিশনিং করা উচিত। তবে হ্যাঁ, চুলের গোড়ায় কোনোমতেই লাগানো যাবে না।

চুলের স্বাস্থ্যে রোজই তেল

আগের দিনে মা-খালারা সকাল হলেই চুলে তেল দিতে উঠানে বসে যেতেন। হেয়ার এক্সপার্টদের মতে, রোজ চুলে তেল লাগানোর প্রয়োজন নেই। রোজ চুলে তেল দিলে চুল তেল চিটচিটে হয়ে যায়। আর তাতে ঝামেলা বাড়ে। বিউটিশিয়ানদের মতে, ‘রোজ নয় তবে চুল স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ও ঝলমলে রাখার জন্য সপ্তাহে এক দিন চুলের গোড়ায় এবং পুরো চুলে তেল লাগাতেই হবে। চুল শুষ্ক ও ভঙ্গুর হলে দুই দিন পর পর তেল ম্যাসাজ করা ভালো।

কেমিক্যালযুক্ত প্রোডাক্ট ব্যবহার

আজকাল চুলের যত্নে নানা কেমিক্যালযুক্ত প্রোডাক্টের ব্যবহার বেড়েছে; যাতে লাভের চেয়ে ক্ষতির পরিমাণটাই বেশি। ভালো মানের পণ্য যাচাই না করেই শ্যাম্পু, কন্ডিশনার, তেল, হেয়ার স্প্রে ইত্যাদি ব্যবহারে চুলকে করে উষ্ক, শুষ্ক এবং চুল পড়ার সমস্যা তৈরি করে। বিউটি ক্লিনিকের এক্সপার্ট বা ডাক্তাররা অতিরিক্ত কেমিক্যালযুক্ত প্রোডাক্টের ব্যবহারে মাথার স্ক্যাল্পের ভীষণ ক্ষতিও হচ্ছে বলেও সাবধান করে দিচ্ছেন।

আধুনিক যন্ত্রের ব্যবহার

রোজই চুল শুকাতে হেয়ার ড্রায়ার! একবার কি ভেবেছেন কতটা ক্ষতি হচ্ছে আপনার চুলের। তা ছাড়া ঘন ঘন হেয়ার স্ট্রেইট বা কার্লিং। এক্সপার্টদের মতে, খুব প্রয়োজন না হলে এগুলো ব্যবহার না করাই ভালো। তবে ফ্যাশনে কিছুটা ভিন্নতা দেখাতে এর ব্যবহার করবেন না তা নয়, এক্সপার্টের পরামর্শে এসব যন্ত্রের ব্যবহার করুন। তবে শুধু এসব যন্ত্রের ব্যবহার করলেই চলবে না, পাশাপাশি নিয়ম করে নিতে হবে ঘরোয়া যত্নও।

ক্লান্তি দূর করতে হট শাওয়ার

সারা দিন পর ক্লান্ত শরীরে বাড়ি ফিরে হট শাওয়ার আপনাকে রিল্যাক্স করতে সাহায্য করে ঠিকই। কিন্তু এই হট শাওয়ার আপনার চুল এবং স্ক্যাল্পেরও ক্ষতি করে। গরম পানিতে চুল থেকে তার স্বাভাবিক ময়েশ্চার ও ন্যাচারাল এসেনশিয়াল অয়েল কেড়ে নেয়। তাই হট শাওয়ার নিলেও চুলে কখনো গরম পানি দেওয়া ঠিক নয়। গরম তেল মালিশে চুল স্বাস্থ্যোজ্জ্বল থাকে। এমন ধারণা ভুল। গরম তেল হেয়ার ফলিকলে ক্ষতি করতে পারে।

ঘন ঘন রঙিন কেশ!

চুলের রং করাবেন সাদা চুল হলে। কিন্তু আজকাল ফ্যাশনের অন্যতম কারণ হিসেবে হেয়ার কালারের ব্যবহার বাড়লেই তা ঘন ঘন করা উচিত নয়। এক্সপার্টদের মতে, বছরে তিনবারের বেশি রং করা উচিত নয়। কেননা, কেমিক্যালযুক্ত হেয়ার কালার চুলের ক্ষতি করতে পারে এবং এর জন্য বাড়তি যত্নও প্রয়োজন।

লেখা : ফেরদৌস আরা

 

বিডি প্রতিদিন

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031 
       
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ