জনগণের খাদেম হিসাবে কাজ করে গেছেন এমপি সামাদ: নাদেল

প্রকাশিত: ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২০, ২০২১

জনগণের খাদেম হিসাবে কাজ করে গেছেন এমপি সামাদ: নাদেল

অনলাইন ডেস্ক :: বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেছেন, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি কর্মের মাধ্যমে মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন। তিনি ছিলেন একজন দক্ষ ও সাহসী সংগঠক। তাঁর দক্ষতার মাধ্যমে নির্বাচনী এলাকার মানুষ উপকৃত হয়েছেন। সব সময় উনার চিন্তা চেতনা থাকতো মানুষের কল্যাণ সাধন করা। প্রতি সপ্তাহে বাড়িতে অবস্থান করে নির্বাচনী এলাকার মানুষের সুখ-দুঃখ শুনে তাদের চাহিদা পূরণ করতেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সর্ব কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের নামে ‘শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ’ সংগঠন করে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করে এ সংগঠনকে সু-সংগঠিত রেখেছেন। করোনা কালীন মহামারীর সময়ে দীর্ঘ্য ১ বছর উন্নয়নের পাশাপাশি সরকারি ও ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অনুদান প্রদান করে মানুষের পাশে থেকেছেন। সৎ, নিষ্ঠাবান ও ধার্মীক ব্যক্তি ছিলেন তিনি। তাঁর মাধ্যমে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র আন্তরিকতায় তাঁর নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। বিশেষ করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, কৃষি, বিদ্যুৎ সহ নানামুখী উন্নয়ন করেছেন তিনি।

তিনি সব সময় মানুষকে ভালবাসতেন মানুষ ও উনাকে ভালবাসতো। তিনি নিঃসন্দেহে একজন পরিশ্রমী ও জ্ঞানী সংগঠক। তাঁর মৃত্যুতে যে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে, তা পূরণ হবার নয়। আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়ন জনগণের দোরগড়ায় পৌছে দিতে নিরলস ভাবে কাজ করে গেছেন মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। তাঁর মূল লক্ষ্য ছিলো জনগণের খেদমত করা। তিনি জনগণের খাদেম হিসাবে কাজ করে করে গেছেন। আকর্ষিক ভাবে মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী’র ইন্তেকালে নেতা-কর্মী সহ সাধারণ মানুষ হতবাক ও বাকরুদ্ধ। আমরা তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।

শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল শুক্রবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ সুরমার বাইপাসস্থ আল নুর কমিউনিটি সেন্টারে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মরহুম মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী স্মরণে শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

দক্ষিণ সুরমা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম আহমদের পরিচালনায় শোক সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি, সাবেক এমপি শফিকুর রহমান চৌধুরী, সহ সভাপতি এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবির উদ্দিন, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফারুক আহমদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক রইছ আলী, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট সালেহ আহমদ হিরা, শহিদুর রহমান সাহিন, হাবিবুর রহমান হাবিব, এডভোকেট বদরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, সাবেক তেতলী ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা ময়নুল ইসলাম, সিলেট জেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম আহমদ ভিপি, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাজ্জাক হোসেন, মরহুম মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর ভাগিনা জুনেদ চৌধুরী, দক্ষিণ সুরমা প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুসিক।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী একজন কর্মী বান্ধব নেতা ছিলেন। তিনি দলকে সু-সংগঠিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। তাঁর এই চলে যাওয়ায় দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেলো। তাঁর মৃত্যুর পরে জানাযায় যেভাবে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নেমেছিল তাতেই প্রমাণ হয়, তিনি কতো ভালো মানুষ ছিলেন। তিনি একটি পবিত্র মাসে মৃত্যু বরণ করেছেন। আমরা তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি, সাবেক এমপি শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতির দায়িত্ব থাকা অবস্থায় জেলা আওয়ামীলীগের সাথে সকল আন্দোলন, সংগ্রাম, মিছিল, মিটিংয়ে অগ্রভাগে ছিলেন। তিনি লোভ লালসার উর্ধ্বে থেকে উন্নয়ন সাদিত করে গেছেন। মহান জাতীয় সংসদে তার সাহসী ভূমিকা ছিলো। তিনি একজন সৎ সাহসী ব্যক্তি হিসাবে, আল্লাহ যেনো তাঁকে বেহেস্ত নছিব করেন এই কামনা করি।

অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক হুমায়ুন আহমদ চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রব, আব্দুল আহাদ, বরইকান্দি ইউপি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি গৌছ মিয়া, দাউদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুল হক, মোগলাবাজার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শানর মিয়া, সিলাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহবায়ক আব্দুল হাই মাষ্টার, তেতলি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাসিত রানা, জালালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়েস আহমদ, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আশিক আলী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সারওয়ার আলম মিতুন।

আরো উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা কৃষক লীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন, আওয়ামীলীগ নেতা আলী রাজা, খিজির খান, তাহসিন আহমদ দিপু, নেছার আলী, আজির উদ্দিন, আখতার হোসেন, আতিকুর রহমান, মহিউদ্দিন আহমদ, আবু সাইদ জুবেরী সাদ, মুহিদ হোসেন, আবুল মিয়া, সেলিম আহমদ মেম্বার, সুরঞ্জিত দাস, আব্দুস সত্তার, ফুরুক মিয়া, তোয়াজিদুল হক তুহিন, গোলজার আহমদ, আতিকুর রহমান, খলিলুর রহমান, ইছবর আলী, মুক্তিযুদ্ধা আখতার হোসেন, আইয়ুব হোসেন মেম্বার, সাহেল আহমদ কামাল মেম্বার, পংকি মিয়া, আমির আলী, সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা খালেদ আহমদ চৌধুরী, কালাম হোসেন, প্রবাসী মোহাম্মদ সেবুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক নিরুপম চক্রবর্তী শুভ্র, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুর কাদির সাদেক, বরইকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান হাবিব হোসেন, তেতলী ইউপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফারুক মিয়া, সিলাম ইউপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানমুজিবুর রহমান, দাউদপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম আলম, চন্দ্র পাল, মনসুর আহমদ চৌধুরী, লায়েক আহমদ জিকু, জাকারিয়া উল হক, সিলেট জেলা শেখ রাসেল পরিষদের সভাপতি ডা. রকিবুল হাসান জুয়েল, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা শেখ রাসেল পরিষদের সভাপতি কামরুল ইসলাম সুমন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহিন আহমদ, শাকিল মাহমুদ মইন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শামীম আহমদ, শাহিন আলী, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছদরুল ইসলাম, সহ সভাপতি দুলাল আহমদ প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
17181920212223
24252627282930
31      
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ