জনগণের চাওয়ায় লালাবাজারে চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন মেম্বার ফেরদৌস মিয়া

প্রকাশিত: ৫:২৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০২১

জনগণের চাওয়ায় লালাবাজারে চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন মেম্বার ফেরদৌস মিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার ৬ নং লালাবাজার ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার (ইউপি সদস্য) মো. ফেরদৌস মিয়া ইউনিয়নবাসীর চাওয়ায় এবার চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হচ্ছেন। ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে থাকা ফেরদৌস মিয়া বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন বলে মনে করছেন সচেতন এলাকাবাসী।

ইলেকশন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে সিলেটের ৭৭টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ নভেম্বর। এদিন লালাবাজার ইউনিয়নেও ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিয়নটিতে ইতোমধ্যে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থী বাছাই করেছে। গত সোমবার (১৮ অক্টোবর) দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুল এলাকার একটি কমিউনিটি সেন্টারে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভার পর ইউনিয়নের ওয়ার্ড সভাপতি ও সেক্রেটারির ভোটের মাধ্যমে উপজেলার ৫ ইউনিয়নের প্রার্থী বাছাই করা হয়। এর মধ্যে লালাবাজার ইউনিয়নে আছাব আহমদ মনোনীত হয়েছেন। তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছাড়াও লালাবাজার ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে চাচ্ছেন আরও দুই জন। তারা হচ্ছেন- ৩ নং ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য ও সাবেক জামায়াত নেতা মো. শহিদুর রহমান এবং বিএনপি নেতা আমিনুল ইসলাম চৌধুরী সিফতা।

তবে স্থানীয় নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর চেয়ে এলাকাভিত্তিক প্রার্থীকে ভোটাররা অগ্রাধিকার দিবেন বলে মনে করছেন সচেতন মহল। তাই এলাকাবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আসন্ন লালাবাজার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে যাচ্ছেন ৭ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার মো. ফেরদৌস মিয়া।

ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নংসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের ভোটারদের সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, মেম্বার মো. ফেরদৌস মিয়া এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতাসহ বিভিন্ন ভাতাসুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন ন্যায্য গ্রহীতাদের। রাত-বিরেতে ওয়ার্ডবাসীর ডাকে সাড়া দিয়েছেন। নিজের ওয়ার্ডের বাইরে গিয়েও মানুষের সমস্যা দূর করার চেষ্টা করেছেন তিনি। তাই ফেরদৌস মিয়াকে এবার চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে মেম্বার মো. ফেরদৌস মিয়া বলেন, এলাকার মানুষের ভালোবাসায় আমি বিগত নির্বাচনে ৭ নং ওয়ার্ড মেম্বার নির্বাচিত হয়েছি। নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ৫টি বছর ওয়ার্ডবাসীর সুখে-দুঃখে তাদের পাশে থেকে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখেছি। নিজের ওয়ার্ডের বাইরে গিয়েও অনেক বিচার-সালিশসহ সমাজসেবামূলক কাজে জড়িত হয়েছি। এবার যদি ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ, সর্বোপরি আমার এলাকার মানুষ চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার দাবি জানান তবে তাদের সেই ভালোবাসার দাবিকে উপেক্ষা করতে পারবো না।

উল্লেখ্য, লালাবাজার ইউনিয়নের সকল চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থী আগামী ২ নভেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিবেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ৪ নভেম্বর, প্রত্যাহারের শেষ দিন ১১ নভেম্বর এবং ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৮ নভেম্বর।

সিলনিউজবিডি ডট কম / এস:এম:শিবা

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ