জুলাইর পূর্বেই বৃটেনে হার্ড ইমিউনিটি: গবেষকের দাবি

প্রকাশিত: ৭:১৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২১

জুলাইর পূর্বেই বৃটেনে হার্ড ইমিউনিটি: গবেষকের দাবি

অনলাইন ডেস্ক
আগামি জুলাই মাসের মধ্যেই বৃটেনে হার্ড ইমিউনিটি নিশ্চিত হবে বলে দাবি করেছেন দেশটির একজন শীর্ষ বিজ্ঞানী। এরফলে গ্রীষ্মের মাঝামাঝি সময়েই দেশটিতে জীবন স্বাভাবিক হয়ে যাবে। মূলত ভ্যাকসিন কার্যক্রমের কারণেই এই অর্জন সম্ভব বলে মনে করেন ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের (ইউসিএল) প্রফেসর কার্ল ফ্রিস্টন। এ খবর দিয়েছে মিরর।
কার্ল বলেন, সংক্রমণ ও মৃতের হার হ্রাসে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কার্যক্রমের বড় প্রভাব আমরা দেখতে পাচ্ছি। গ্রীষ্মের দিনগুলোতে আমরা আশার আলো দেখতে পাচ্ছি। ইউসিএল গবেষকদের মডেল অনুযায়ী, ফেব্রুয়ারির ২ তারিখে বৃটেনে মাথাপিছু সংক্রমণের সংখ্যা (আর রেট) ছিল ০.৭৫। এ থেকে এটি স্পষ্ট যে করোনার সংক্রমণ সেখানে কমে আসছে। দেশের তৃতীয় লকডাউন আর রেট কমিয়ে এনেছে।
প্রফেসর কার্ল বলেন, লকডাউন কাজ করছে। সঙ্গে ভ্যাকসিন কার্যক্রম চলতে থাকলে গ্রীষ্মের মধ্যেই সকল বৃটিশকে করোনাভাইরাস মুক্ত করা সম্ভব।

তিনি যুক্ত করেন, জুলাই মাস নাগাদ বৃটেনে হয়তো কিছু সংক্রমণ দেখা যাবে তবে ভ্যাকসিন কার্যক্রম, প্রাকৃতিক প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং সামাজিক দূরত্বের কারণে হার্ড ইমিউনিটিতে পৌছে যাবে বৃটেন। হার্ড ইমিউনিটি মানে হচ্ছে, কেউ আর কাউকে সংক্রমিত করছে না। আর রেট যেহেতু কমে যাচ্ছে তাই লকডাউনও আর দরকার পরবে না।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ