জৈন্তাপুরের পল্লীতে দু-পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৮

প্রকাশিত: ৬:৫৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০২১

জৈন্তাপুরের পল্লীতে দু-পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৮

 

জৈন্তাপুর প্রতিনিধিঃ জৈন্তাপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর অবস্থায ৮ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এব্যাপারে আহত ইনছান আলী বাদী হয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানায় অভিযোগ দাখিল করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ৮ জানুয়ারী শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ১নং নিজপাট ইউনিয়নের রূপচেং গ্রামে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রূপচেং মসজিদের জমির উপর জনসাধারণের যাতায়াতের রাস্তা বহমান রয়েছে। দীর্ঘ দিন থেকে উক্ত জায়গা দখলের পায়তারা করছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য গোলাম সোবহানী ময়না। এনিয়ে গ্রামবাসীর সাথে ময়না মেম্বারের দীর্ঘ দিনের বিরোধ চলছে। শুত্রæবার সকালে বিরোধপূর্ণ জায়গায় গোলাম সোবহানী ময়নার ছেলে আব্দুল আলীম ও বদরুল ইনলাম একটি দোকান ঘর নির্মান কাজ শুরু করেন। এসময় মসজিদের জায়গা দাবী করে গ্রামের লোকজন নির্মান কাজে বাধা দেন। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে। এতে দু-পক্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হন। আহতরা হলেন রূপচেং গ্রামের হাজি কুতুব আলীর ছেলে ইনছান আলী (৬০), আরমান আলী (৫০), জামিল আহমদ জাবেদ (৩৫), আরমান আলীর ছেলে তোফায়েল আহমদ (১৮), সাহেদ আহমদের স্ত্রী রাবেয়া বেগম (৪৫), বশির উদ্দিনের ছেলে আব্দুল হান্নান (৩২), আব্দুল মজিদ (৩৬), আব্দুস সালাম (২৮), হাজি কুতুব আলীর স্ত্রী পিয়ারুন নেছা (৫৫), তৈয়ব আলীর ছেলে রফিক আহমদ (৩৫), কলিম উল্লাহর ছেলে ছইদ আহমদ (৩২)। অপর পক্ষের আহতরা হলেন ইউপি সদস্য গোলাম সোবহানী ময়না (৬৪), ছেলে আব্দুল আলীম (৩৫), আব্দুল কাদির বদরুল (৩০), মেয়ে লায়লা খানম (৩৪), মুমিন আহমদ (১৮)। এদের মধ্যে ৮ জনকে জৈন্তাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
এব্যাপারে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মহসীন আলীর সাথে আলাপকালে তিনি বলেন সংঘর্ষের ঘটনায় ইনছান আলী নামে একজন বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দিয়েছেন। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেব এবং ইতোপূর্বে আমাদের পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ