জৈন্তাপুরে করোনার রিপোর্ট পেতে দেরি, বাড়ছে সংশয়

প্রকাশিত: ২:৫০ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

জৈন্তাপুরে করোনার রিপোর্ট পেতে দেরি, বাড়ছে সংশয়

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি :: জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ৬ জুন ১২টি, ৭ জুন ১০টি এবং ৮ জুন ৬টি মোট ৩০টি নমুনা সংগ্রহ করে ঘটিত উপজেলা মেডিকেল টিম। এসব নমুনা সংগ্রহ করে সিলেটে প্রেরন করা হলে সিলেটের অন্য সব উপজেলার নমুনার সাথে জৈন্তাপুর উপজেলার গুলো ঢাকায় পাটিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু সিলেটের বেশ কয়েকটি উপজেলার ৭ জুনের রিপোর্ট চলে এসেছে আজ ১৬ জুনের ঢাকা থেকে ঘোষিত রিপোর্টে অথচ জৈন্তাপুর উপজেলার ৬ জুনের রিপোর্ট আজও আসেনি।

এতে হতাশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন পূর্বে যাদের পজেটিভ রিপোর্ট এসেছিল, এসব রোগী দ্বিতীয় দফায় নমুনা দিয়েছিল সুস্থ্যতা নিশ্চিতের জন্য। এমনকি ৬জুন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর প্রধান হিসাব রক্ষক আকবর হোসেন ও ৮ জুন পরিসংখ্যান অফিসের মুক্তাদির হোসেন মুক্তা সহ বেশ কয়েক জন দ্বিতীয় দফায় নমুনা দিয়েছেন, নিজেকে সুস্থ্যতা মনে করলেও রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কর্মস্থলে ফিরতে পারছেননা তারা।

অন্যদিকে ১০ জুনের রিপোর্ট চলে এসেছে সিলেটের ল্যাব থেকে। ১৩ জুন ১০টি, ১৪ জুন ২২টি এবং ১৫ জুন ৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়, এসব সিলেটের ল্যাবে রয়েছে পরীক্ষর জন্য বলে নিশ্চৎত করেন মেডিকেল টিম।

তবে ঢাকায় প্রেরিত নমুনা নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। এসব নমুনার কার্যকারীতা কতদিন থাকবে বা রিপোর্ট কবে আসবে এর সঠিকক উত্তর পাওয়া যায়নি ওই কর্মকর্তার কাছ থেকে।

এ ব্যাপারে উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে ঘটিত কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আমিনুল হক সরকার বলেন, যে ভাবে বিলম্বে রিপোর্ট আসছে তা নিয়ে আমরা চিন্তিত, আজ জেলা সমন্বয় মিটিংয়ে এ বিষয়ে দাবি উত্তাপন করেছি, ঢাকা থেকে রিপোর্ট আসতে অনেক দেরি হয়ে যায় এ নিয়ে আমরা সংকুচিত, আশা করি সিলেটের নমুনা আর ঢাকায় পাঠানো লাগবেনা এখন সিলেটেই পরীক্ষা হবে এবং দু’এক দিন পর রিপোর্ট চলে আসবে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ