‘টেস্ট ক্রিকেট মায়ের হাতের তৈরি খাবারের মতো’

প্রকাশিত: ১০:৩৭ অপরাহ্ণ, জুন ১২, ২০২০

‘টেস্ট ক্রিকেট মায়ের হাতের তৈরি খাবারের মতো’

স্পোর্টস ডেস্ক :; শ্রীলংকার বিশ্বকাপ জয়ী সাবেক অধিনায় অর্জুন রানাতুঙ্গা বলেছেন, টেস্ট ক্রিকেট মায়ের হাতের তৈরি খাবারের মতো। যা অনেক ভালোবাসা, যত্ন ও ধৈর্য্ দিয়ে তৈরি করা হয়। যা পুষ্টিকর খাবারের মতো। আর টি-টোয়েন্টি হল তাৎক্ষণিক বানিয়ে দেয়া নুডুলসের মতো।

সম্প্রতি ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোতে ভারতের সাবেক তারকা ক্রিকেটার ও জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জেকারের সঙ্গে ভিডিও চ্যাটে আলাপকালে এমন মন্তব্য করেন রানাতুঙ্গা।

শ্রীলংকার হয়ে ১৯৮২ থেকে ২০০০ সালে খেলেছেন রানাতুঙ্গা। তার অধিনায়কত্বে ১৯৯৬ সালে প্রথম বিশ্বকাপের স্বাদ পায় লংকানরা। ক্রিকেট থেকে অবসরে রাজনীতিতে জড়িয়ে যাওয়া এ কিংবদন্তি আরও বলেছেন, এখন থেকে ১০ বছর আগে টেস্ট ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানরা বড় শট নেয়ার আলগা বলের অপেক্ষা করতেন। কিন্তু বর্তমানে অর্ধেক ভালো ডেলিভারিতেও ব্যাটসম্যানরা শট নিয়ে বাউন্ডরি হাঁকান।

টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে এএফপিকে বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমান নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন বলেছেন, অতীতে প্রতিটি দল দিনে ১৫০ থেকে ২০০ রান করলেই সন্তুষ্ট থাকত। কিন্তু বর্তমানে দিনে ৩০০ রান চায় প্রতিটি দল। বড় স্কোরের আরও একটি কারণ হল, ফ্লাট উইকেট।

সঞ্জয় মাঞ্জেকারের সঙ্গে ভিডিও চ্যাটিংয়ে ভারতীয় কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান রাহুল দ্রাবিড় বলেছেন, আমি সত্যিকারর্থে বিশ্বাস করি, টেস্ট ব্যাটিং এখন অনেক বেশি উপভোগ্য, আগের চেয়ে অনেক বেশি ইতিবাচক। টেস্ট ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানরা বেশি শট খেলছে, যা দুর্দান্ত।

১৯৯৬ থেকে ২০১২ সালে টেস্ট ও ওয়ানডে মিলে ৫০৯ ম্যাচে ষষ্ঠ সর্বোচ্চ ২৪ হাজার ২০৮ রান করা রাহুল দ্রাবিড় বলেন, বর্তমান সময়ে যদি আমি আগের মতো ব্যাটিং করতাম তবে টিকতে পারতাম না। বর্তমানের স্ট্রাইকের দিকে দেখুন। ভারতের জন্য দুর্দান্ত হল, বিরাট কোহলি টেস্ট ক্রিকেটকে অনেক বেশি প্রাধান্য দেয়। কোহলি দেখিয়েছেন, কিভাবে তিন ফরম্যাটেই ধারাবাহিকভাবে খেলতে হয়।

দ্রাবিড় আরও বলেছেন, আমি অবশ্যই নিজেকে কোহলি বা রোহিত শর্মার সঙ্গে তুলনা করব না। কারণ তারা ওয়ানডে ক্রিকেটকে নতুন স্তরে পৌঁছে দিয়েছে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ