তথ্যপ্রমাণ না দিলে শাজাহান খানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা: ইলিয়াস কাঞ্চন

প্রকাশিত: ৪:৫৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

তথ্যপ্রমাণ না দিলে শাজাহান খানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা: ইলিয়াস কাঞ্চন

ডেস্ক :: পরিবহন শ্রমিকনেতা ও সরকারদলীয় সাংসদ শাজাহান খানের ‘মিথ্যাচারের’ প্রতিবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে বলেছেন, ‘আমি তাকে (শাজাহান খান) ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিচ্ছি। এই সময়ের মধ্যে জাতির সামনে তথ্য তুলে ধরতে হবে। নতুবা আমি আইনের পথেই হাঁটব। আমরা ইতিমধ্যে আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলেছি। প্রক্রিয়া চলমান আছে।’

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের আবদুস সালাম মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন। শাহাজাহান খানের সাম্প্রতিক এক বক্তব্যের প্রতিবাদে নিসচা এই সংবাদ সম্মেলন করে।

নিসচা চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘শাজাহান খান নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের একটি অনুষ্ঠানে আমাকে এবং নিরাপদ সড়ক চাইসহ আমার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে নির্লজ্জ মিথ্যাচারের মাধ্যমে অসত্য, বানোয়াট ও উদ্ভট কিছু প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন। আমার চরিত্র হরণের চেষ্টা চালিয়েছেন। তিনি এসব প্রশ্ন যখন করেছেন, তখন আমি বিশেষ প্রয়োজনে ভারতে অবস্থান করছিলাম। তাই তাৎক্ষণিকভাবে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হতে পারিনি। তবে নিসচার পক্ষ থেকে ওই দিনই প্রতিবাদ জানানো হয়েছিল। শাজাহান খানের বক্তব্যের জন্য তাকে ২৪ ঘণ্টা আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। হয় তথ্য প্রমাণ উপস্থাপন করুণ, নতুবা ক্ষমা প্রার্থনা করুন। গত ২৪ ঘণ্টাতেও শাজাহান খান তার বক্তব্যের সপক্ষে কোনো প্রমাণ হাজির করেননি। এবং ক্ষমাও চাননি।’

গত ৮ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি অনুষ্ঠানে ইলিয়াস কাঞ্চনের কঠোর সমালোচনা করেন শাজাহান খান। ইলিয়াস কাঞ্চন তার সংস্থার নামে, নিজের নামে, পুত্রের নামে ও পুত্রবধূর নামে লাখ লাখ টাকা নেন—এমন দাবি করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, তিনি এই হিসাব জনসমক্ষে তুলে ধরবেন।

ইলিয়াস কাঞ্চনকে ‘জ্ঞানপাপী’ আখ্যা দিয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি শাজাহান খান বলেন, ‘আপনি যে বিদেশিদের কাছ থেকে নিরাপদ সড়ক চাই এনজিওর নামে কোটি কোটি টাকা নিয়ে আসছেন, আপনি কয়টি প্রতিষ্ঠান করেছেন? কয়টি স্কুল করেছেন, কয়জন মানুষকে ট্রেনিং দিয়েছেন—আমি তার তথ্য বের করতেছি।’

শাজাহান খানের বক্তব্য প্রসঙ্গে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘আমি যখন দেশের বাইরে ছিলাম, তখন এসব প্রশ্নের কেন অবতারণা? এটা পেছন থেকে ছুরিকাঘাতের শামিল। যদি সেই সৎসাহস থাকে, তাহলে সামনে এসে প্রমাণ নিয়ে বসুন। প্রয়োজনে লাইভ টক শো হবে। পুরো জাতি দেখবে।’

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘আমি কারও পক্ষে বা বিপক্ষে নই। আমি আপামর মানুষের স্বার্থে কথা বলি। কিন্তু শাজাহান খান বলেন, আমি নাকি সাধারণ মানুষের কাছে পরিবহন শ্রমিকদের বিরুদ্ধে কথা বলে নেতিবাচক আবহ তৈরি করি। আমি সব সময় বলি, অন্যায়ের বিরুদ্ধে, অনিয়মের বিরুদ্ধে। আমি বলি, বিশৃঙ্খল পরিবেশের বিরুদ্ধে। আর সেটা যদি কারও বিপক্ষে যায়, তাহলে কি খুব বেশি অন্যায় হবে?’

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘আমরা কখনো চালক-মালিকদের প্রতিপক্ষ ভাবি না। কিন্তু তিনি (শাজাহান খান) বারবার এই চালক-মালিকদের আমার, আমার সংগঠন, পরিবার ও নিসচার সদস্যদের বিরুদ্ধে খেপিয়ে তুলছেন। যার ফলে আমি আমার জীবন, পরিবার, সংগঠন ও সংগঠনের সকল স্তরের নেতা-কর্মীদের জীবন নিয়ে শঙ্কিত। সরকারের কাছে আমাদের জানমালের নিরাপত্তা বিধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আহ্বান জানাই।’

ইলিয়াস কাঞ্চনের ভাষ্য, শাহাজাহান খান শুধু নিজের দুর্বলতা ঢাকার জন্য এমন মিথ্যাচার করেছেন। তিনি এই সব মানহানিকর কথা বলেছেন জাতিকে বিভ্রান্ত করার জন্য। সেই সঙ্গে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বাধাগ্রস্ত করতে উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে শাহাজাহান খান অবান্তর প্রশ্ন করেছেন। ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, এই বক্তব্যের জবাব তাঁকে দিতে হবে। এবং এমন কাজের জন্য তাঁকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। না হলে এই বক্তব্যের প্রতিবাদে রাজপথে নামতে বাধ্য হবে নিসচার কর্মীরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের ফেইসবুক পেইজ