দঃসুনামগঞ্জের স্বাভাবিক মৃত্যুকে খুনের ঘটনা সাজিঁয়ে নিরীহ মানুষকে হয়রানির প্রতিবাদে ও মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৬:৫২ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০২১

দঃসুনামগঞ্জের স্বাভাবিক মৃত্যুকে খুনের ঘটনা সাজিঁয়ে নিরীহ মানুষকে হয়রানির প্রতিবাদে ও মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন

মো. আব্দুস সালাম,সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
দক্ষিণ সুনামগঞ্জের চিকারকান্দি গ্রামে পূর্ববিরোধের জেরে সংঘর্ষের ঘটনায় মো. আব্দুল আউয়াল (৬৮)নামে এক ব্যক্তির স্বাভাবিক মৃত্যুকে খুনের ঘটনা সাজিঁয়ে থানায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রামের নিরীহ শতাধিক লোকজনকে আসামী করে হয়রানির প্রতিবাদে এবং মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার দুপুর ১২টায় বৈরী আবহাওয়ার মাঝেও গ্রামের প্রতিপক্ষ রফিক খান,সুহেল খান,আক্কাছ খান, ফজল খান, গোলাপ হোসেন খানের ভয়ে রাস্তায় মানববন্ধন করতে না পেরে তাদের বাড়ির উঠানে শতাধিক পরিবারের পূরুষ শূন্য নারী ও শিশুরা এ মানববন্ধনে অংশ নেন।
এ সময় বক্তব্য রাখেন,মিথ্যা মামলায় আসামী মো.ফজলু মিয়ার স্ত্রী সুজিনা ্েবগম,রাহেলা বেগম,সুভা বেগম,গুরুতর আহত আব্দুল আলিমের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ফারহানা ইসলাম মুন্নী,খালেদা বেগম,রোজিনা বেগম,খুসনী বেগম,জোঃস্না বেগম,সোািজনা বেগম,মাকমদা বেগম,রেসনা বেগম, সুফিয়া বেগম ও মমিলা বেগম প্রমুখ।
তারা বলেন,গত ৪জুন উপজেলার পূর্বপাগলা ইউনিয়নের চিকারকান্দি গ্রামের মাঠে ফুটবল খেলা চলাকালে গ্রামের প্রভাবশালী প্রতিপক্ষ রফিক খান,সুহেল খান,আক্কাছ খান, ফজল খান, গোলাপ হোসেন খান,করিম খান গংরা খেলার পুরস্কার ছিনিয়ে নিতে গ্রামের নিরীহ ,মো. আবুল কাশেম, মো. ফজলু মিয়া,শাহ আলমের লোকজনের উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় । এতে নিরীহ আবুল কাশেম ও ফজলু মিয়ার পক্ষে হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত হন নারীসহ বেশ কয়েকজন । তারা বলেন স্বাভাবিকভাবে দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ থাকা মো. আব্দুল আউয়াল কিছুদিন পূর্বে টিউমার অপারেশন করে নিজ বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তার শ^াসঃকষ্ট ও ছিল। তিনি সংঘর্ষের ঘটনার দিন অসুস্থতার কারণে এবং বয়সেরভাবে মাঠেও যাননি। তিনি নিজ বাড়িতে স্ট্রোক করে মৃত্যুবরণ করলেও গ্রামের প্রভাবশালী প্রতিপক্ষ রফিক খান ও সুহেল খান গং এই স্বাভাবিক মৃুত্যুকে খুনের মামলা সাজিঁয়ে থানায় আমাদের শতাধিক লোকজনকে আসামী করে মিথ্যা হত্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে বলে অভিযোগ করেন। পূরুষ শূন্য থাকায় রফিক খান ও সুহেল খানের লোকজন বাড়িতে এসে মহিলাদের প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে তারা দোকানে যেতে না পারায তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ মালামাল সব নষ্ট হচ্ছে। এই স্বাভাবিক মুৃত্যুকে কিভাবে প্রািতপক্ষের লোকজন খুনের মামলা দিয়ে নিরীহ মানুষদের হয়রানি করছে তা সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আসল রহস্য উদঘাটনের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আইন শৃংখলা বাহিনীর নিকট জোর দাবী জানান। ##

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ