দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জের সর্বস্তরের জনগণকে ফারজানা সামাদ চৌধুরী’র ঈদ শুভেচ্ছা

প্রকাশিত: ৯:৩৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২১, ২০২১

দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জের সর্বস্তরের জনগণকে ফারজানা সামাদ চৌধুরী’র ঈদ শুভেচ্ছা

ডেস্ক রিপোর্ট :: পবিত্র ঈদ উল আযহা উপলক্ষ্যে দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ একাংশের সর্বস্তরের জনগণসহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীদেরকে ঈদের শুভেচ্ছা ও ঈদ মুবারক জানিয়েছেন মরহুম মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি’র সহধর্মিনী, ফারজানা গার্লস হাই স্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও সামাদ গ্রুপ অফ ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক ফারজানা সামাদ চৌধুরী।

শুভেচ্ছা বার্তায় ফারজানা সামাদ চৌধুরী বলেন- ঈদ উল আযহা মুসলমানদের অন্যতম বড় একটি উৎসব। এই উৎসবের অংশ হিসেবেই পশু কোরবানি দেওয়া হয়ে থাকে। তবে পশু কোরবানি দিলেও এর অন্তর্নিহিত তাৎপর্য হলো মনের লোভ-লালসা, হিংসা-বিদ্বেষ ত্যাগ করে আত্মত্যাগের শিক্ষাকে ধারন করা। মহান আল্লাহর সান্নিধ্য অর্জনের যে সুনির্দিষ্ট আনন্দময় অপার সুযোগ সেটাই ঈদ উল আযহা বা কুরবানী। আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের উদ্দেশ্যে মহান আল্লাহর নামে কোনো কিছু উৎসর্গ করার নাম কুরবানী। উৎসর্গকৃত পশু, যা এক আল্লাহর উদ্দেশ্যে জবেহ করা হয়, আত্মীয়-স্বজন বিশেষত দুঃস্থ দরিদ্রজনের মধ্যে যা বিতরণ করে আল্লাহর নির্দেশ মোতাবেক তাঁর সান্নিধ্য লাভ করার চেষ্টা চালানো হয়, সে সার্থক প্রচেষ্টার যে আত্মিক আনন্দ- সেটাই ঈদ উল আযহা।

তিন বলেন- প্রতিবছর মহাসমারোহে এই উৎসব পালন করা হলেও এ বছর বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে কিছুটা ভিন্ন আঙ্গিকে হাজির হল ঈদ উল আযহা। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব অনুসরণের বাধ্যবাধকতা থাকছে। তাই সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দৈনন্দিন সব কাজ সম্পাধন করার জন্য অনুরোধ রইলো।

তিন আরো বলেন- করোনাভাইরাস মহামারীর এই দুঃসময় সকল আধাঁর কাটিয়ে ঈদুল আযহা সবার জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল আনন্দ, সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি। সমাজে সৃষ্টি হোক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের মেলবন্ধন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র বিচক্ষণ নেতৃত্বে ও সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টায় শীঘ্রই এই করুন পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে বাংলাদেশ সক্ষম হবে ইনশাআল্লাহ। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, অপরকেও সুরক্ষিত রাখুন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ