দোয়ারাবাজার থেকে মোবাইল চুরি আটক ১ মুচলেকা দিয়ে মুক্তি

প্রকাশিত: ৫:৪৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ৭, ২০২০

দোয়ারাবাজার থেকে মোবাইল চুরি আটক ১ মুচলেকা দিয়ে মুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সুনামগঞ্জ জেলা দোয়ারাবাজার উপজেলা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের অফিস থেকে সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের মোবাইল চুরি করেছে এক ব্যক্তি। গত ১১ ফেব্রুয়ারি উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদে চুরির ঘটনা ঘটে। পরে মোবাইল লোকেশন ট্রেকিং এর মাধ্যমে দোয়ারাবাজার থানা পুলিশের এস আই প্রদীপ গত শনিবার(৩ জুলাই) সিলেটের করিম উল্লাহ মার্কেট থেকে মৌলভীবাজার বড়লেখার জুনেদ মিয়া নামে ওই ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশ। তার কাছ থেকে চুরি হওয়া মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়,আটকের পর দোয়ারাবাজার বাজার থানায় ১৬৪ ধারা জবানবন্দিতে জুনেদ মিয়া দোয়ারাবাজার উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ও সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক হেলাল উদ্দিরে নাম বলেন এবং মোবাইটি হেলাল মিয়া তাকে উপহার হিসাবে দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন জুনেদ মিয়া। স্থানীয় সূত্র জানা যায় দোয়ারাবাজার উপজেলা সদর ইউনিয়নে সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য সামছুর নাহার চেয়ারম্যান আব্দুল বারীর অফিসে বিষেশ কাজের যান কিন্তু এই সময় চেয়ারম্যান আব্দুল বারীর অফিসে জেলা বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক ও দোয়ারাবাজার উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক হেলাল মিয়া অফিসে ছিলেন আলাপ চলার এক পর্যায়ে তিনি মোবাইল টেবিল রেখে চলে যান। ওই মোবাইল ফোনটি হেলাল মিয়া চুরি করে চম্পট দেন। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও মোবাইল ফিরে পাননি তিনি। এই ঘটনা দোয়ারাবাজার থানায় একটি (জিডি) করেন মহিলা সদস্য (জিডি নং৪০২)। দোয়ারাবাজার থানার ওসি মো. আবুল হাসেম বলেন জুনেদ মিয়াকে আটকের পর আমি সামছুর নাহারকে মামলা দেওয়ার জন্য বলি তিনি মামলা করতে ইচ্ছুক নয়। এজন্য আটককৃত জুনেদ মিয়া থানায় মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেই এবং হেলাল মিয়ার বিষটি স্থানীয় ভাবে মীমাংসা করবেন বলে আমাকে জানিয়েছেন। পরে ৫ জুলাই রবিবার বিকালে এই ঘটনা মীমাংসা করার জন্য সামছু নাহারের বাড়িতে এলাকার সালিশ ব্যক্তিত্বরা বসে বিষটি মীমাংসা করেন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ