নতুন বছরে আকাশে দেখা যাবে ‘ফেইক মুন’

প্রকাশিত: ৩:২১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৭, ২০১৯

নতুন বছরে আকাশে দেখা যাবে ‘ফেইক মুন’

সিলনিউজ বিডি :: চীনারা চাইলে কি-না পারে, কম-বেশি এ কথাটা সবাই বলি! এবার চাঁদ বানানোর শেষ প্রান্তে তারা। দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিচুয়ান প্রদেশের রাজধানী চেংড়ু শহরে মানবসৃষ্ট চাঁদটি স্থাপন করা হবে শিগগিরই।

চাঁদটি চীনের আকাশে আলো ছড়াবে অমাবস্যার অন্ধকারেও। চাঁদটি ভুয়া হলেও খবরটি নয়, এটি সত্যিই! চীনের বিজ্ঞানীরা কৃত্রিম চাঁদ বানাচ্ছেন; ২০২০ সাল থেকেই আলো ছড়াবে এটি। চেংদুর তিয়ান ফু নিউ এরিয়া সায়েন্স সোসাইটির প্রধান উ চুনফেং বলেন, সিচুয়ান প্রদেশের রাজধানীতে চেংদুতে একটি কক্ষপথে চাঁদটি বসানো হবে। সিচুয়ানের জিচ্যাং স্যাটেলাইট লঞ্চ সেন্টার থেকে চাঁদটি কক্ষপথে বসানো হবে ২০২০ সালের মধ্যে। প্রথম কার্যক্রমটি সফলভাবে সম্পন্ন হলে আরো তিনটি কৃত্রিম চাঁদ বসাবে দেশটি।

চীনের মহাকাশসংস্থা বিশ্বে প্রথমবারের মতো কৃত্রিম চাঁদ বানাচ্ছে, যা সাহায্য করবে চীনের আলোক ব্যবস্থায়। কৃত্রিম ওই চাঁদ আসল চাঁদের মতোই সূর্যের আলো প্রতিফলিত করে রাতের পৃথিবীকে আলোকিত করবে। ওই চাঁদটি মূলত একটি স্যাটেলাইট। বিজ্ঞানীদের মতে সাধারণ মানুষের চোখে মূল চাঁদের চেয়ে ওটি হবে আটগুণ বেশি উজ্জ্বল। আর সড়ক বাতির চেয়ে উজ্জ্বল হবে পাঁচগুণ কম।

নকল চাঁদটি পৃথিবীর ৫০০ কিলোমিটার দূর থেকে এই গ্রহটির চারপাশে ঘুরবে। আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনও পৃথিবী থেকে প্রায় একই দূরত্বে অবস্থান করছে। তবে, পৃথিবীর উপগ্রহ চাঁদ আছে পৃথিবী থেকে তিন লাখ ৮০ হাজার কিলোমিটার ওপরে। এটি ১০ থেকে ৮০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে সূর্যের আলোকে প্রতিফলিত করবে এবং এর উজ্জ্বলতা হবে আসল চাঁদের আলোর তুলনায় আটগুণ বেশি!

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের ফেইসবুক পেইজ