নারী ধর্ষনের শাস্তি এখন মৃত্যুদন্ড করা হয়েছে, তাই নারীদের সাথে সহিংসতা করে কেউ পার পাবে না -পুলিশ সুপার

প্রকাশিত: ২:১৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

নারী ধর্ষনের শাস্তি এখন মৃত্যুদন্ড করা হয়েছে, তাই নারীদের সাথে সহিংসতা করে কেউ পার পাবে না -পুলিশ সুপার

স্বপন দেব, নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ “নারীর প্রতি সহিংসতা নিরসনে আপনার পুলিশ আপনার পাশে” এ ¯েøাগানকে সামনে রেখে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে
পুলিশ-জনতা সমাবেশ- ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে জেলা পুলিশের আয়োজনে সদর উপজেলার একাটুনা ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মৌলভীবাজার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইয়াছিনুল হক এর সভাপতিত্বে ও ওসি তদন্ত পরিমল চন্দ্র দে এর পরিচালনায়। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ পিপিএম ( বার)।

প্রধান অতিথি বলেন,ধর্ষনের শাস্তি এখন মৃত্যুদন্ড,নারীদের সাথে সহিংসতা করে কেউ পার পাবে না। ধর্ষনের মত যে কোনো অভিযোগ পাওয়ার সাথে অভিযোগ প্রমান না হওয়া পর্যন্ত কাউকে দোষী বলা যাবে না। এছাড়া নারীর নির্যাতন ও ধর্ষন প্রতিরোধে প্রতিটি পরিবার এবং সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে সচেতন ও ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান তিনি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, একাটুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান।

সদর সার্কেল জিয়াউর রহমান বলেন,নারী নির্যাতনকারী ও ধর্ষনকারীদের সমাজে তাদের কোনো স্থান নেই। এব্যাপারে পুলিশ আরও কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নিবে। তিনি আরো বলেন, মানুষের সসচেতনতার কারনে একাটুনা ইউনিয়ে গত ৭ বছরের মধ্যে কোনো নারী নির্যাতন শূণ্যের কোঠায় রয়েছে। একাটুনা ইউনিয়ের মত মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় নারী নির্যাতন ও ধর্ষন বন্ধকরে মডেল উপজেলা করতে সকলের সহযোগিতা চান তিনি।

এছাড়া সভায় বক্তব্য রাখেন, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক পান্না দত্ত, ইউপি সদস্য সালমা আক্তার,ইউপি সদস্য ইমন তরফদার, সমাজসেবক মোঃ সিরাজুল ইসলাম,হাফিজ মাওঃ মইনুল হক চৌধুরী,উত্তরমুলাইম মাদ্রাসার সুপার মাওঃ শামছুল ইসলাম, সমাজসেবক আব্দুল হালিম, কলেজ ছাত্রী মারিয়া আক্তার পপি,স্কুল ছাত্রী আয়শা জান্নাত প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ