নৌকাকে হারিয়ে ফের শ্রীমঙ্গলের মেয়র মহসিন

প্রকাশিত: ৮:৫৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২১

নৌকাকে হারিয়ে ফের শ্রীমঙ্গলের মেয়র মহসিন

স্বপন দেব, নিজস্ব প্রতিবেদক ::

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে পুণরায় নির্বাচিত হয়েছেন মহসিন মিয়া মধু। তিনি শ্রীমঙ্গল পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি। রোববার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সৈয়দ মনসুরুল হককে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন মহসিন।

রাত ৮টার দিকে নির্বাচনের চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষনা করা হয়। এসময় জেলা নির্বাচন অফিসার মো.আলমগীর হোসেন বেসরকারীভাবে মহসিন মিয়াকে নির্বাচিত ঘোষণা করেন।

এই নির্বাচনে তিনজন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে মহসিন মিয়া নারিকেল গাছ প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ৫৯৮৯ ভোট, তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনীত সৈয়দ মনসুরুল হক নৌকা প্রতিক নিয়ে পেয়েছেন ৫৫৩২ ভোট। এছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ আছাদ উদ্দিন আহমেদ মোবাইল ফোন নিয়ে পেয়েছেন ২২১ ভোট।

নির্বাচনে ১নং ওয়ার্ডে মো. আলকাছ মিয়া (উট পাখি), ২নং ওয়ার্ডে আব্দুল জব্বার আজাদ (পাঞ্জাবী), ৩নং ওয়ার্ডে মো. হানিফ চৌধুরী (উট পাখি), ৫নং ওয়ার্ডে মসুদুর রহমান মসুদ (উটপাখি), ৬নং ওয়ার্ডে কাজী আব্দুল করিম (উট পাখি), ৭নং ওয়ার্ডে মীর এম এ সালাম (পাঞ্জাবী), ৮নং ওয়ার্ডে মো. মো. ছাদ উদ্দিন (পাঞ্জাবী) , ৯নং ওয়ার্ডে চয়ন কুমার রায় (উট পাখি) বিজয়ী হন। এদিকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৪ নং ওয়ার্ড থেকে বিজয়ী হন মো. জাহাঙ্গির আলম সোহাগ।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর হিসেবে ১,২ ও ৩ নং তানিয়া আক্তার (আনারস) ওয়ার্ড থেকে, ৪,৫ও ৬ নং ওয়ার্ড থেকে রোকেয়া পারভিন (আনারস) , ৭,৮ও ৯ নং ওয়ার্ড থেকে শাহানা জামান (আনারস) বিজয়ী হয়েছেন।

রোববার সকাল থেকে ইভিএম পদ্ধিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। শ্রীমঙ্গল পৌরসভায় এই প্রথমবার ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ হয়।

শ্রীমঙ্গল পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডে ১১টি ভোট কেন্দ্র, মোট ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ৯৪ জন ভোটার সকাল ৮টা থেকে ৪টা পর্যন্ত তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ ২০১১ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল শ্রীমঙ্গল পৌরসভা নির্বাচন। এরপর মেয়াদ শেষ হলেও নানা আইনি জটিলতার কারণে নির্বাচন হয়নি। প্রায় ১১ বছর পর শ্রীমঙ্গল পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

যে কারণে নির্বাচন হয়নি –
শ্রীমঙ্গল পৌরসভায় ২০১৬ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি শ্রীমঙ্গল পৌরসভার মেয়াদপূর্ণ হয়। সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১১ সালের ১৮ জানুয়ারি। বিজয়ীরা একই বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি শপথ নিয়ে এর দুইদিন পর ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রথম সভা হয়। এই নির্বাচনে ভাতিজা মহসিন মিয়া মধু নিকট হেরে যান প্রয়াত চাচা সাবেক এমপি ও পৌর মেয়র মো. আহাদ মিয়া। সেই থেকে দীর্ঘ ১১ বছর ধরে মহসিন মিয়া মধু মেয়র পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

শ্রীমঙ্গল পৌরসভা ১৯৩৫ সালের ১ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯২৩ সালের আসাম মিউনিসিপ্যাল এ্যাক্ট এর বিধান অনুযায়ী প্রতিষ্ঠা হয় এই পৌরসভা। দুই দশমিক ৫৮ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের পৌরসভা দেশ স্বাধীনের পর ‘গ’ শ্রেণীতে রূপান্তর হয়। এরপর ১৯৯৪ সালের ১ জুলাই ‘খ’ শ্রেণীতে ২০০২ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ‘ক’ শ্রেণীতে উন্নীত হয়। কিন্তু সীমানা বর্ধিত করা হয়নি। ২০১৫ সালে কাজী মো. আব্দুল আজিজ সীমানা বর্ধিতকরণের জন্য উচ্চ আদালতে একটি রিট দায়ের করেন। রিট পিটিশন নং-৮৬৭৫/২০১৫। প্রায় একই সময়ে জাহাঙ্গীর হোসেন নামের আরেকজন একই বিষয়ে আরেকটি রিট করেন।

রিট পিটিশন নং-৮৯২৩/২০১৫। এরপর উচ্চ আদালতের নির্দেশে সীমানা বর্ধিতকরণের কার্যক্রম শুরু হয়।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় একটি ডিজিটাল ম্যাপও তৈরি করে। সীমানা বর্ধিতকরণের কার্যক্রম বর্তমানে চলমান রয়েছে বলে জানা গেছে। শ্রীমঙ্গল পৌরসভার বয়স প্রায় ৮৬ বছর।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
17181920212223
24252627282930
31      
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ