ন্যায়পাল নিয়োগ, রায়হান হত্যাকারী প্রধান আসামী আকবর গংদের গ্রেফতারের দাবী এখন গণদাবী

প্রকাশিত: ২:২৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০২০

ন্যায়পাল নিয়োগ, রায়হান হত্যাকারী প্রধান আসামী আকবর গংদের গ্রেফতারের দাবী এখন গণদাবী

অনলাইন ডেস্ক :
শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান, রায়হান হত্যাকারীদের দ্রæত গ্রেফতার, সিলেট ও কক্সবাজার থানার ওসিদের বিষয় সম্পত্তি হিসাব সরকারের নিকট দাখিল এবং তা গণমাধ্যমে প্রকাশ, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে এক বিরাট প্রতিবাদ সভা গতকাল ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার ৩টায় ঐতিহাসিক সিলেট কোর্ট পয়েন্টে কেন্দ্রীয় সভাপতি নাছির উদ্দিন এডভোকেটের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জননেতা মকসুদ হোসেন। এ সময় নগরীর বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা থেকে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে মিছিল সহকারে নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ সভায় যোগদান করেন।
প্রতিবাদ সভায় বক্তারা পুলিশ কাস্টরিতে নওজোয়ান রায়হানের নির্মম হত্যার ঘটনায় সিলেটবাসীর ন্যায় গোটা দেশবাসী বিক্ষুব্ধ। এই নিষ্ঠুর ঘটনার দায় সরকার ও প্রশাসন এড়াতে পারে না। জনরোষ ঠেকাতে অবিলম্বে রায়হান হত্যাকারী আকবরগং ও তার আশ্রয়-প্রশয়দাতাদের শাস্তি দেখতে চাই দেশবাসী। পাশাপাশি সিলেট জেলা ও এসএমপি এবং কক্সবাজার থানার সকল ওসিদের বিষয় সম্পত্তির হিসাব সরকারের নিকট দাখিল ও গণমাধ্যমে তা প্রচার করার জোর দাবী জানান।
বক্তারা বলেন, দুর্নীতির তদন্ত নিচ তলায় চলবে আর উপর তলায় চলবে না দেশবাসী তা মানে না। গত ৭ অক্টোবর দৈনিক প্রথম আলোয় প্রকাশিত করোনার আগেই লুপাট ৩শ’ কোটি টাকা, করোনা মোকবেলায় এত দুর্নীতি আর কোনো দেশে হয়নি। দুর্নীতি আর উন্নয়ন এক সাথে চলতে পারে না। বক্তারা শেয়ারবাজার কেলেংকারীর মাধ্যমে ৩০ হাজার কোটি টাকা লুটপাটকারী, হলমার্ক কেলেংকারী, বেসিক ও ফার্মারস ব্যাংক ধ্বংসকারী আব্দুল হাই বাচ্চু গংরা এখনো জামায় আদরে। ঋণের টাকায় মখা আলমগীর হাসপাতাল কিনেছেন। রিভার্জ ব্যাংকের প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং কোম্পানী থেকে পিকে হালদার সহ সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা লুটপাটকারীরা এখনো ধরা ছোয়ার বাইরে। এটা কোন ইনসাফের কথা। পদ্মা সেতু নির্মাণের ব্যয় বাড়ছে। হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনা-কাটার নামে শত শত কোটি টাকা লুটপাটকারীরা এখনো বহাল তবিয়তে। উচ্চ পর্যায়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সাঁড়াসি অভিযান শুরু হলে ধর্ষণ, সন্ত্রাস, মাদক সহ ফৌজদারী অপরাধ কমে যাবে। সংবিধানে ন্যায়পাল থাকা সত্তে¡ও আজও ন্যায়পাল চালু হয়নি। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতি ও অন্যায় রোধে অবিলম্বে ন্যায়পাল নিয়োগ করার দাবী জানান।
দ্রব্যমূল্যে লাগামহীন উর্ধ্বগতি রোধ করে ক্রয় ক্ষমতার ভিতরে নিয়ে আসার দাবী জানিয়ে বক্তারা বলেন, আলুর দাম বৃদ্ধি পেশ তাৎপর্য ঘটনা। আলু খাবার চলের পর এক দ্বিতীয় প্রধান খাদ্য। নি¤œ আয়ের মানুষ প্রয়োজনীয় সবজি কিনতে পারেন না। তাই তারা আলুর উপর নির্ভরশীল। সাধারণ মানুষের দুর্দশা লাঘবে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ ও আলুর বেধে দেয়া দাম দ্রæত কার্যকর করা জোর দাবী জানান।
সভাপতির বক্তব্যে নাছির উদ্দিন এডভোকেট বলেন, ধর্ষণের বিরুদ্ধে ছাত্র ও মা বোনরা যে ভাবে রাজপথে নেমেছেন, ঠিক তেমনী দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে মৃত্যুদÐ শাস্তি বিধানের জন্য রাজপথে গণজাগরণ তৈরী করতে পারলে ধর্ষণ সহ সকল বিশৃঙ্খলা বহুলাংশে কমে যাবে ইনশাআল্লাহ।
দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরাম কেন্দ্রীয় সদস্য মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আকরাম আল সাহানের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ সভাপতি ইকবাল হোসেন চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, মামুন রশীদ এডভোকেট, বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন আহমদ, মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক, অনলাইন প্রেসক্লাব সেক্রেটারী সাংবাদিক মশাহিদ আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক চিনুরঞ্জন তালুকদার, দক্ষিণ সুরমা শাখার সভাপতি আব্দুল ওয়াহিদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম চৌধুরী সুহেল, জাগো সিলেট আন্দোলনের সভাপতি আলা উদ্দিন আলো, কেন্দ্রীয় ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সেনাজ, শহীদ রায়হানের মামা তারেক আহমদ বিলাস, চাচতো ভাই তানভীর আহমদ, হাবিবুর রহমান হাবিব এডভোকেট, কেন্দ্রীয় সদস্য কয়েছ আহমদ সাগর, শাহিদুর রহমান জুনু, রফিকুল ইসলাম সিতাব, আমিরুল হোসেন চৌধুরী আমনু, মোঃ আরশ আলী, ইসলামী ঐক্যজোট সিলেট জেলা সভাপতি মাওলানা আসলাম রহমানী, যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় ইসমত ইবনে ইসহাক (সানজিদ), সিনিয়র সহ সভাপতি ইমাম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আমিন তাহমিদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাবেদুল ইসলাম দিদার, সাংগঠনিক সম্পাদক রিখন তালুকদার রিখন,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নিয়াজ কুদ্দুছ খাঁন, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সৈয়দ নুর আহমদ জুনেদ, যুব শ্রমিক নেতা আদনান খাঁন হেলাল প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি

 

আমাদের ফেইসবুক পেইজ