পাঁচ দফা দাবিতে সিলেটে কাফনের কাপড় পরে সড়ক অবরোধ

প্রকাশিত: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২১

পাঁচ দফা দাবিতে সিলেটে কাফনের কাপড় পরে সড়ক অবরোধ

অনলাইন ডেস্ক
সড়ক দুর্ঘটনা রোধে পাঁচ দফা দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রশিদপুরে কাফনের কাপড় পরে মানববন্ধন ও মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে সচেতন বিশ্বনাথ সমাজ কল্যাণ সংস্থা নামের একটি সংগঠন।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তিন উপজেলার সীমান্তবর্তী রশিদপুরে কর্মসূচি চলাকালে কাফনের কাপড় পরে তিন রাস্তার মোড়ে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে ‘মানবভ্রমের মাধ্যমে প্রতীকী গোলচত্বর’ নির্মাণ করে সংগঠনটি।

এসময় রাস্তার উভয়পাশে শতশত যানবাহন আটকে থাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। ১০ মিনিটের প্রতীকী মহাসড়ক অবরোধ শেষে পাঁচ দফা দাবি ঘোষণার মধ্য দিয়ে কর্মসূচি সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

দাবিসমূহ উপস্থাপন করে আয়োজকরা জানান, অবিলম্বে রশিদপুরে গোলচত্ত্বর ও স্প্রিডব্রেকার নির্মাণ, ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন, সড়কবাতি স্থাপন ও ডিভাইডারের মাধ্যমে পৃথক লেন সৃষ্টি ও দূরপাল্লার বাসে দুজন করে চালক দিয়ে গাড়ি চালানো না হলে আগামীতে মহাসড়ক অবরোধসহ আরও কঠোর কর্মসূচি দিয়ে দাবি আদায় করা হবে।

কর্মসূচিতে একাত্বতা পোষণ করে নিজ নিজ ব্যানার নিয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেয় মানবসেবা রক্তদান সমাজকল্যাণ ফাউন্ডেশন, মানবতার ঘর, বিশ্বনাথ ইসলামি ছাত্রসংস্থা, রাজ সংগীতালয় এবং বাচাঁও হাওর আন্দোলন।

সচেতন বিশ্বনাথ সমাজ কল্যাণ সংস্থার আহবায়ক মো. ফজল খানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব আব্দুল বাতেনের পরিচালনায় কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন জাতীয় কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা বাপার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম, সিলেট জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদ, বিশ্বনাথ প্রেস ক্লাবের সহসভাপতি তজম্মুল আলী রাজু, বাচাঁও হাওর আন্দোলনের আহবায়ক সাজিদুর রহমান সুহেল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ডা. বিভাংশু গুণ বিভু, চাউলধণী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক আলতাব হোসেন, ডা. গিয়াস উদ্দিন, বিশ্বনাথ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রফিক মিয়া।আরও বক্তব্য রাখেন, সিলেট অনলাইন মিডিয়ার সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুর রহমান হাবিব, দক্ষিণ সুরমার দলিল লেখক শহিদ আলী, সিলেট জেলা পরিবহন শ্রমিক নেতা আব্দুল হাকিম, নাসিং হোমের পরিচালক সফিক আহমদ পিয়ার, বিশ্বনাথ পৌরসভার কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ইমরান আহমদ সুমন, বিশ্বনাথ ইসলামি ছাত্র সংস্থার সভাপতি আবুল কাশেম, মানবতার ঘরের উদ্যোক্তা ইকবাল হোসেন, মিয়াদ আহমদ, মুহিন আহমদ নেপুর, বাচাঁও বাসিয়া নদী ঐক্য পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক এসবি সেবু, মানবসেবা রক্তদান সমাজ কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি আব্দুন নূর। এসময় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার বিপুল সংখ্যক লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন জাতীয় কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা বাপার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম বলেন, সিলেটের বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তিন উপজেলার সীমান্তবর্তী সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের রশীদপুরের ঘন ঘন সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে। এই দুর্ঘটনারোধে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো কার্যকর উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এরফলে লাশের সারি দিন দিন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে।

সিলেট জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদ বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে সড়ক যোগাযোগ খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য সড়ক দুর্ঘটনার কারণ চিহিৃত করে সড়ক দুর্ঘটনারোধে পরিকল্পিত কোনো উন্নয়ন হয়নি। এ কারণে রশিদপুরসহ দেশের দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকাগুলোতে প্রতিদিন কোথাও না কোথাও সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে। আর একেকটি পরিবারের সব স্বপ্ন এই সড়ক দুর্ঘটনার মাধ্যমে তছনছ হয়ে যাচ্ছে। তাই সড়ক দুর্ঘটনা বন্ধে দ্রুত উদ্যোগ নিতে হবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল পৌনে ৭ টায় সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের রশিদপুর নামক স্থানে সিলেটমুখি লন্ডন এক্সপ্রেস (ঢাকা মেট্রো-ব ১৫-৩১৭৬) ও ঢাকামুখি এনা পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো ব ১৪-৭৩১১) দ্রুতগতির দুটি বাসের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে উভয় বাসের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে দুই বাসের চালক, একজন চিকিৎসকসহ ৮ জন নিহত হয়েছেন। গুরুতরর আহত হয়েছেন আরও ১৮ জন।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ