পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএমের মহানুভবতায় অন্ধ হাফেজের পরিবারে আনন্দের বন্যা

প্রকাশিত: ১২:১৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২২

পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএমের মহানুভবতায় অন্ধ হাফেজের পরিবারে আনন্দের বন্যা

সিলনিউজ বিডি ডেস্ক :: গত ২৯ জুন সিলেটের গোয়াইনঘাটে পৃথক স্হানে জেলা পুলিশের উদ্যোগে বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ, খাদ্যসামগ্রী বিতরণ ও পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় অংশ নেন সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএম। তার এ মানবিক সহযোগিতা কার্যক্রম তুলে ধরতে আসেন অনেক ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক। এ তালিকায় ছিলেন, সিলেট প্রতিদিন সম্পাদক ও এনটিভি ইউরোপের সিলেট প্রতিনিধি সাজলু লস্কর।

সিলেট প্রতিদিন সম্পাদকের অনুসন্ধানে উঠে আসে একজন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কোরআনে হাফেজের ভেসে যাওয়া ঘরের চিত্র। পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন পিপিএম’র গোয়াইনঘাটের সফর, ত্রাণ সহায়তা অনুষ্ঠান শেষে গোয়াইনঘাট থানায় গেলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএমকে সাজলু লস্কর ওই কোরআনে হাফেজের বসত ঘর ভেসে যাওয়ার কাহিনী অবহিত করেন।

বিষয়টি জেনে তাৎক্ষণিকভাবে সিলেটের মানবিক পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন এই হাফেজের

ক্ষতিগ্রস্ত ঘরটি মেরামতের সম্পূর্ন দায়িত্ব নেন। তাৎক্ষণিক তিনি ঘরটির প্রাথমিক কাজ সম্পন্ন ও আসবাবপত্র ক্রয়ে নগদ ২০ হাজার, জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে প্যাকেট ভর্তি ত্রাণ এবং তৈরি পোশাকও তুলে দেন।

এসময় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম সিলেট প্রতিদিন সম্পাদকসহ সাংবাদিকদের এমন কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত এই হাফেজ সাহেবের কন্ঠে পবিত্র কুরআন শরীফ তেলাওয়াতও শুনেন।

সেদিন পুলিশ সুপারের সেই ঘোষণা অবশেষে মাস পেরুতে না পেরুতেই বাস্তবায়ন হলো। পুলিশ সুপারের দিক নির্দেশনা ও অর্থায়নে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুলে তত্ত্বাবধানে ঘরটি দ্রুত আগের মতো করে গড়ে তোলা হয়েছে।

মঙ্গলবার ( ৯ আগস্ট) বিকেল ৫টায় গোয়াইনঘাটের লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের শনিরগ্রামের অন্ধ সেই হাফেজ আব্দুল মালিকের বাড়িতে হাজির হন সিলেটের বিদায়ী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম। নতুন ঘরের চাবি তুলে দেন আব্দুল মালিকের হাতে। নতুন ঘর পেয়ে আনন্দে আত্মহারা অসহায় অন্ধ হাফেজ আব্দুল মালিক খুশিতে আবেগাপ্লুত হয়ে উঠেন। বন্যায় ভেসে যাওয়া ঘরটি নতুন রুপে ফিরে পাওয়ায় খুশি তার পুরো পরিবার। এসময় তিনি সিলেটের বিদায়ী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএমসহ এ মহতি কাজে জড়িত সবাইকে কৃতজ্ঞচিত্ত অভিনন্দন জানান। চাবি হস্তান্তরকালে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম’র সাথে উপস্থিত ছিলেন গোয়াইনঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার প্রবাস কুমার সিংহ, গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাবু সুভাষ চন্দ্র পাল ছানা, ৪নং লেঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও গোয়াইনঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মুজিবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুবাস দাস প্রমুখ।

শুধু হাফেজ মালিকের পরিবারের সদস্যরাই নয়। সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিনের এমন বদান্যতা ও মহানুভবতায় খুশি পুরো গোয়াইনঘাটবাসী। চাবি হস্তান্তরের খবর যে পাচ্ছেন তিনিই প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তারা সবাই এসপি ফরিদকে একজন মহানুভব ব্যক্তি হিসাবে উল্লেখ করে তার সার্বিক কল্যাণ কামনা করছেন।

হাফিজ মালিকেরই একজন প্রতিবেশি মোবাইলে সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, অন্ধ এই হাফেজের ঘর ভেসে যাওয়ার পর আমরা সবাই তার জন্য খুব দুশ্চিন্তায় ছিলাম। ছেলে মেয়েকে নিয়ে তিনি কোথায় যাবেন কিভাবে থাকবেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পুলিশ সুপারের মহনুভবতায় এই পরিবারটি নিজেদের ঠিকানা ফিরে পেয়েছে। আমরা পুলিশ সুপার ফরিদ এবং সাংবাদিক সাজলু লস্করের প্রতি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31      
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ