প্রতারণার মামলায় সিলেট এয়ার সার্ভিসের মালিক মাওলানা নুরুল আমিন পুলিশের হাতে আটক

প্রকাশিত: ১১:০৯ অপরাহ্ণ, মে ৯, ২০২১

প্রতারণার মামলায় সিলেট এয়ার সার্ভিসের মালিক মাওলানা নুরুল আমিন পুলিশের হাতে আটক

 নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ চেক প্রতারণা মামলায় দোয়ারাবাজার উপজেলা বাংলাবাজার ইউনিয়নের আনন পাড়া (বাঁশতলা) গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দিন মুন্সির ছেলে সিলেট এয়ার সার্ভিসের মালিক মাওলানা নুরুল আমিনকে আটক করে সিলেট এসএমপি’র এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ।ওয়ারেন্ট জারির পর তিনি পলাতক ছিলেন। এর আগে গত ২০২০ সালের ২১ অক্টোবর মাওলানা নুরুল আমিন ও লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের ক্বারী আবুল হাশেমের ছেলে মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জ জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিমের আদালতে মামলা (নং সিআর-১৩৩/২০) দায়ের করা হয়। মামলা সূত্রে জানা যায়, ভালো বেতনের চাকরিসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার প্রলোভন দেখিয়ে বাদী আব্দুস সামাদের দুই ছেলেকে কানাডা ও সৌদি আরব পাঠানোর নামে বিবাদীরা গত ২০১৯ সালের ৭ জুলাই থেকে ২০২০ সালের ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত কয়েক দফায় ১৭ লাখ ৭৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে পাওনা টাকা চাইলে বাদীকে ১৭ লাখ ৭৪ হাজার টাকা কয়েকটি চেক ও মানি রিসিট প্রদান করলে ব্যাংক ডিজঅনার করে। পরে গত ২০২০ সালের ২১ অক্টোবর তিনি একটি চেক প্রতারণা মামলা দায়ের করা হয়।মামলার বাদী একই উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের গিরিশনগর গ্রামের মৃত হাছন আলী ছেলে আব্দুস সামাদ। মামলার বাদী আব্দুস সামাদ প্রতিবেকে বলেন দোয়ারাবাজার থানার ওসি মোহাম্মদ নাজির আলমকে একাধিকবার বলার পরেও তিনি আমার আসামি আটক করেনি। বরং আসামিদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা খেয়ে আমার সাথে আসামি গ্রেফতারের নাটক সাঁজিয়েছেন দিনের পর দিন। বাদী কান্না জড়িত কন্ঠে আরও বলেন- ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিদের ধরতে ওসি সাহেবের বিন্দুমাত্র সাহায্য সহযোগীতা পায়নি, বরং যতবার থানায় গিয়েছি উল্টো আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেছেন ওসি। সিলেট এয়ারপোর্ট থানার ওসি মাইনুল জাকির সাহেবকে মন থাইকা সবসময় শ্রদ্ধা করবো। সিলেট এসএমপি’র এয়ারপোর্ট থানার এস,আই হোসাইন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,জালালাবাদ একটি বাড়াবাসা থেকে আদালতের নির্দেশে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দোয়ারাবাজার থানার একটি মামায় মাওলানা নুরুল আমিনকে আটক করা হয়েছে। আমারা থাকে দোয়ারাবাজার থানায় হস্তান্তর করব।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ